মেইন ম্যেনু

স্ত্রীকে মেরেপিটে ঢোকানো হলো গাড়ির বক্সে

অবশেষে তরুণীটিকে কাহিল করে গাড়ির ব্যাক ঢালায় ঢুকিয়ে ঢালাটি বন্ধ করতে পারলেন মানুষটি। হাত ঝেড়ে একটু যেন স্বস্তিও প্রকাশ করলেন। তারপর গিয়ে বসলেন গাড়ির সামনের আসনে।

না দৃশ্যটি কোনো চলচ্চিত্রের শুটিং নয়, কিংবা চলচ্চিত্রের অংশ নয়। চীনের হেবেই প্রদেশের চ্যাংজু শহরের একটি গ্যাস স্টেশনে ঘটেছে ঘটনাটি।

ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দৃ্শ্যটি দেখা যায়। চীনা সোশ্যাল মিডিয়া সাইট উইবোতে এটি আপলোড করা হয় ৯ জুন।

ভিডিওর শুরুতে দেখা যায়, গাড়ির ব্যাক ঢালার ভেতরে এক তরুণীকে ঠেসে ধরেছেন এক যুবক। তাকে বক্সে শুইয়ে দিতে জোরাজুরি করছেন। তরুণীটি চেষ্টা করছেন সেখান থেকে বের হতে; একটি পা ব্যাক ডালা থেকে বের করতেও সক্ষম হন। কিন্তু যুবকটি এলোপাতাড়ি চড়-থাপড়-কিল মারতে থাকেন তাকে।

আশপাশ থেকে দুই-একজন ব্যতিব্যস্ত হয়ে ছুটে আসেন। কিন্তু কাছে ঘেঁষেন না তারা। বাধা দিচ্ছে না কেউ। যুবকটি মেরেই চলেছে তরুণীকে।

ঘাড় ধরে মেয়েটিকে ঠেসে ধরেন যুবক। আবার ধস্তাধস্তি। আবার চড়-থাপ্পড়। এবারের মাত্রা আগের চেয়ে বেশি। কোনো এক নারী একটু কাছে গেলেও সাহস করে বাধা দিতে পারেননি। নারীকণ্ঠে শোনা যায়, “তাকে আঘাত করো না।” কেউ একজন যুবকটিকে নিষেধ করছে ওই তরুণীকে না মারতে এবং তাকে ছেড়ে দিতে। কিন্তু নাছোড়বান্দা যুবক তাতে কর্ণপাত না করে ধস্তাধস্তি, মারধর করতেই থাকেন। একপর্যায়ে তরুণটিকে গাড়ির বক্সে শুইয়ে দিতে সক্ষম হন তিনি। লড়াইয়ে পরাজিত তরুণটি বার দুয়েক মাথা তুলতে চেয়েছেন, কিন্তু ততক্ষণে ঢালা নামিয়ে এনেছেন যুবক। তারপর চেপে ধরে আটকে দেন সেটি।

যুবকটি এবার ঘুরে দাঁড়ায় আগত লোকজনের দিকে। বিক্ষিপ্ত কয়েক পা ফেলে এগিয়ে যায় গাড়ির সামনের দিকে। যেতে যেতে বলে যান তরুণী তার স্ত্রী। তার সঙ্গে এমন আচরণের কারণও জানান তিনি। তারপর হাত ঝাড়তে ঝাড়তে গাড়ির চালকের আসনে গিয়ে বসেন। সূত্র: দ্য সান।






মন্তব্য চালু নেই