মেইন ম্যেনু

স্ত্রীকে মেরে ৭ দিন ঝুলিয়ে রাখল স্বামী

স্বামীর সন্দেহ ‘স্ত্রীর বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে’। আর এই সন্দেহের বশে স্ত্রীকে খুন করে সাত দিন ঘরে ঝুলিয়ে রাখল স্বামী। এরপর প্রতিবেশীরা পচা গন্ধ পেয়ে বাড়ি থেকে উদ্ধার করে দেহ। অবশ্য গ্রেপ্তার হয়েছেন অভিযুক্ত ওই স্বামী। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলায়।

অভিযুক্ত চাঁদু সর্দার বর্ধমানের কাটোয়ার জামড়া গ্রামের বাড়িতে স্ত্রী ও দুই মেয়েকে রেখে কর্মসূত্রে কেরালায় থাকতেন। মাঝে মাঝে বাড়ি ফিরতেন আর দশজন চাকরিজীবীর মতো। সর্বশেষ গত ২৯ ডিসেম্বর বাড়িতে ফেরেন চাঁদু সর্দার।

এর পর থেকেই গায়েব হয়ে যান তার স্ত্রী রূপা। প্রতিবেশীরা জানতে চাইলে চাঁদু জবাব দিতেন, স্ত্রী বাপেরবাড়ি গেছেন। কিন্তু গত সোমবার সন্ধ্যায় চাঁদুর বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ ছড়ানোয় সন্দেহ হয় প্রতিবেশীদের। আর তারপরই ঘটনা প্রকাশ পেয়ে যায়। কাটোয়া থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। গ্রেপ্তার করা হয়েছে স্বামীকে।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জেনেছে, স্ত্রীর বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে এই সন্দেহেই তাকে হত্যা করেছে চাঁদু। এরপর দেহ পাশের ঘরে ঝুলিয়ে রেখে অন্য ঘরে ছোট মেয়ের সঙ্গে থাকত সে। এই ঘটনার জেরে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

তথ্যসূত্র : ইনাডুইন্ডিয়া ডটকম






মন্তব্য চালু নেই