মেইন ম্যেনু

স্থানীয় নির্বাচনেও নৌকা-ধানের শীষ

জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতীক ঠিক রেখে স্থানীয় সরকার বিভাগের পাঁচটি আইন এর খসড়া নীতিমালা অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। এই পাঁচটি আইনে পরিচালিত হবে স্থানীয় সরকার বিভাগ। এবার থেকে স্থানীয় সরকারের সবধরনের নির্বাচনে দলীয় প্রতীক ও ব্যানার ব্যবহার করবেন প্রার্থীরা।

আইন পাঁচটি হলো স্থানীয় সরকার (ইউনিয়র পরিষদ) আইন, ২০১৫, উপজেলা পরিষদ (সংশোধন) আইন, ২০১৫, জেলা পরিষদ (সংশোধন) আইন-২০১৫, স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) সংশোধন আইন, ২০১৫, স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) সংশোধন-আইন, ২০১৫।

সোমবার দুপুরে মন্ত্রিসভার নিয়মিত ৮০তম বৈঠকে পাঁচটি আইনের খসড়া নীতিগত ভাবে ভেটিং সাপেক্ষে চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সচিবালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা এ বিষয়ে ব্রিফিংকালে এ তথ্য জানান।

মোশাররফ হোসেন ভূইঞা বলেন, ‘এই আইনে দলীয় এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীরা স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন। এরফলে জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থীরা যেসব প্রতীক ব্যবহার করেছেন, সেসব প্রতীক ও ব্যানার স্থানীয় সরকার নির্বাচনে প্রার্থীরা ব্যবহার করতে পারবেন।’ অর্থাৎ দলীয় সমর্থনে প্রার্থীরা দলীয় প্রতীক ব্যবহার করতে পারবেন।

এছাড়া নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধিত দলের দলীয় প্রার্থীরা স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন এটাও এই ৫টি আইনের বিধান রাখা হয়েছে। স্থানীয় সরকার বিভাগের নির্বাচনে কোনো জটিলতা দেখা দিলে সেখানে প্রশাসন নিয়োগ দেয়া হবে বলেও মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান।

এই ৫টি আইনের পাশাপাশি মন্ত্রিপরিষদ ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি ও রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ আইন, ২০১৫-এর খসড়া এবং স্থানীয় সরকারের পৌরসভা সংশোধন আইনের খসড়াটি অধ্যাদেশ আকারে জারি করার প্রস্তাবও অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

তিনি আরও জানান, সরকার আরও ১০ হাজার সিনিয়র স্টাফ নার্স নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একইসঙ্গে স্টাফ নার্স ও সিনিয়র স্টাফ নার্সদের বয়সসীমা ৩০ বছর থেকে বাড়িয়ে ৩৬ বছর করা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘সিনিয়র স্টাফ নার্স নিয়োগের যে বিধিমালা রয়েছে, তা শিথিল করে এ প্রস্তাব অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা।’






মন্তব্য চালু নেই