মেইন ম্যেনু

স্বতন্ত্র এমপিদের দলে টানছে আ.লীগ

২০১৯ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ১৪ জন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যকে (এমপি) দলে ভেড়াতে উদ্যোগী হয়েছে আওয়ামী লীগ। এসব এমপি ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হয়েছিলেন।

নির্বাচিত ১৪ জনের সবাই আওয়ামী লীগ নেতা। দশম সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হন। পরে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে তাদের দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

রোববার (৭ মে) সন্ধ্যায় বসছে আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সভা। সেখানে বিদ্রোহীদের ‌‘ঘরে ফেরা’র সম্ভাবনা রয়েছে। আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, এরা ঘরেরই ছেলে। আগামী নির্বাচনের আগে দলের সবধরনের কোন্দল মেটাতে যে প্রচেষ্টা শুরু হয়েছে এটি তারই অংশ। নির্বাচনের সার্বিক দিকনির্দেশনা পাওয়া যাবে আগামী ২০ মে দলের বর্ধিত সভায়।

একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নানামুখী প্রস্তুতি শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। গত নির্বাচনে যারা দলের মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছিলেন তাদেরকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছিল দল থেকে।

তবে আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের বৃহত্তর স্বার্থের কথা চিন্তা করে স্বতন্ত্র এ প্রার্থীদের দলে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে সম্প্রতি সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও দলের সংসদীয় দলের সম্পাদক নূর ই আলম চৌধুরীর সঙ্গে বৈঠকও করেছেন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা।

আগামী ২০ মে গণভবনে সভানেত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বসছে আওয়ামী লীগের বর্তমান কমিটির প্রথম বর্ধিত সভা। কার্যনির্বাহী সংসদ ছাড়াও এতে অংশ নেবে উপদেষ্টা পরিষদ, জাতীয় কমিটি ও জেলার সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকরা। এছাড়াও জেলার দপ্তর ও উপদপ্তর সম্পাদক, প্রচার ও উপপ্রচার সম্পাদক এবং তথ্য ও গবেষণা সম্পাদকরাও এ সভায় থাকবেন। নেতারা বলছেন, আগামী নির্বাচনের নানা দিক নির্দেশনা পাওয়া যাবে সে সভা থেকে।

তবে ফিরিয়ে আনা স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা আগামী নির্বাচনে দলের মনোনয়ন পাবেন কি-না সেটি এখনই নিশ্চিত নয়। মনোনয়নের ব্যাপারে দলীয় প্রধানের বিভিন্ন জরিপ আর দলের সংসদীয় বোর্ডের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।






মন্তব্য চালু নেই