মেইন ম্যেনু

স্বর্ণ সম্পর্কে বিস্ময়কর কিছু তথ্য

স্বর্ণ বহুল প্রচলিত জনপ্রিয় একটি ধাতু। অলংকারে ব্যবহারের কারণে সচরাচর এই ধাতু আমাদের সংস্পর্শে আসে। পৃথিবীতে আরো অনেক ধাতু আছে। তবু কেন স্বর্ণই এত জনপ্রিয়? এই তথ্য খুজতে গিয়ে দেখা গেল স্বর্ণ আসলে অন্য ধাতুর সাথে বিক্রিয়া করে না এবং অন্য সব ধাতু যেখানে রুপালী বা ধূসর রঙ এর স্বর্ণ সেখানে হলুদ উজ্জ্বল রঙ এর। এই দুই বৈশিষ্ট্যই স্বর্ণকে সবার থেকে আলাদা করেছে। গবেষণায় বেরিয়ে এসেছে আরো অদ্ভুদ বিস্ময়কর কিছু তথ্য। আসুন জেনে নেই সেগুলো।

১। বিশ্বের সবচেয়ে বড় গোল্ড বারটির ওজন ২৫০ কেজি।

২। আমাদের শরীরে ০.২ মিলিগ্রাম স্বর্ণ রয়েছে! এর বেশীরভাগই মিশে থাকে আমাদের রক্তে।

৩। ভারতীয় গৃহিণীরা পৃথিবীর মোট স্বর্ণের ১১% ব্যবহার করে, যা কিনা আমেরিকা, সুইজারল্যান্ড এবং জার্মানির মানুষের মোট ব্যবহার করা স্বর্ণের তুলনায় বেশি।

৪। অ্যালুমিনিয়াম এতই ভাল মানের ধাতু যে ধনীরা তাঁদের ঘরের সমস্ত কিছু অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে তৈরী করতে পছন্দ করবে যেখানে গরীবরা বেছে নেবে স্বর্ণ।

৫। মানসা মূসা, মালি সাম্রাজ্যের রাজা মিশরের ইজিপ্টে অপ্রয়োজনীয় ধাতু মনে করে এত স্বর্ণ নষ্ট করেন যে এটি পরবর্তীতে দেশটির অর্থনীতিকে ধ্বংসের মূখে ঠেলে দেয়।

৬। লেগো (LEGO) কোম্পানিটি তাদের কর্মচারীদের ২৫ গ্রাম ওজনের স্বর্ণের টুকরো উপহার দেয় যদি তাঁরা ২৫ বছর টানা চাকরী করে।

৭। ইউক্যালিপ্টাস গাছের পাতায় স্বর্ণের পাতলা স্তর আছে!

৮। আইসক্রীম কোম্পানিগুলো আইসক্রীম টেস্টার হিসেবে স্বর্ণের চামচ ব্যবহার করে যাতে আইসক্রীমের সাথে চামচের ধাতুর টেস্ট মিশে না যায়।

৯। ১৮৫৯ সালের একরাতে ১টার সময় স্বর্ণ উত্তোলনকারী শ্রমিকরা ঘুম থেকে ঊঠে সকালের খাবার খেতে শুরু করেন কারণ স্বর্ণের আভা এত উজ্জ্বল ছিল যে তাঁদের মনে হয়েছিল ভোর হয়ে গেছে।

১০। পৃথিবীর বেশীরভাগ স্বর্ণ আছে কেন্দ্রের দিকে কারণ সৃষ্টির সময় অধিকাংশ স্বর্ণ পৃথিবীর কেন্দ্রে গিয়ে জমা হয়েছিল।

১১। দুবাই এর এটিএম বুথে শুধু টাকা নয় স্বর্ণের বার ও উত্তোলন করা যায়!

১২। সমূদ্র থেকে সমস্ত স্বর্ণ বের করে নিলে পৃথিবীর প্রতিটি মানুষের মধ্যে ৯ পাউন্ড করে বিতরণ করা সম্ভব!

১৩। নাবিকরা এক সময় কানে স্বর্ণের বালি(দুল) পরত যাতে তাঁরা মারা গেলে সেই স্বর্ণ বিক্রী করে তাদের কবর দেওয়া যায়।

১৪। প্রতিদিন যত স্বর্ণ উত্তোলন করা হয় তার অর্ধেকের বেশী আসে সাউথ আফ্রিকা থেকে।

১৫। অলিম্পিক গোল্ড মেডেলে মাত্র ১% স্বর্ণ আছে।






মন্তব্য চালু নেই