মেইন ম্যেনু

স্বাধীনতার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন যারা

দেশের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার গুরুদায়িত্ব পালন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। জঙ্গিবাদ, খুন, ডাকাতি, রাহাজানি, চুরিসহ যত ধরনের অপরাধ ঘটে তার দায়ভার চূড়ান্তভাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ওপরই বর্তায়। ফলে অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীদের পরিচয় নাগরিকদের অনেকে না জানলেও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম সবারই কমবেশি জানা থাকে।

এ পদটিতে যারা থাকেন তাদের কথাবার্তায় পান থেকে চুন খসলে সারাদেশে ব্যাপক আলোচিত ও সমালোচিত হন।

‘আল্লাহর মাল আল্লাহ নিয়ে গেছে’, ‘উই আর লুকিং ফর শক্রুজ’, ‘২৪ ঘণ্টার মধ্যে খুনিরা ধরা পড়বে’ ইত্যাদি কথা বলে বেশ কয়েকজন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বেকায়দায় পড়ার খবর কারো অজানা নয়।

স্বাধীনতার পর এ পর্যন্ত দেশে কতজন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন তা হয়তো অনেকেই জানেন না। বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল দেশের ৩১তম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এর আগে আরো ৩০ জন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন যার মধ্যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানও রয়েছেন।

স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ এম কামরুজ্জামান ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল থেকে ১১ জানুয়ারি ১৯৭২ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

পরবর্তীতে যারা ছিলেন তারা হলেন- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, এমএ মান্নান, আবদুল মালেক উকিল, মনসুর আলী, মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান, লে. কর্নেল (অব.) মোস্তাফিজুর রহমান, প্রফেসর এম এ মতিন, লে. জে. এইচএম এরশাদ, মেজর জেনারেল মহব্বত জান চৌধুরী, মেজর জেনারেল আবদুল মান্নান সিদ্দিকী, মেজর জেনারেল মাহমুদুল হাসান, প্রফেসর এমএ মতিন, মেজর জেনারেল মাহমুদুল হাসান, বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ, বেগম খালেদা জিয়া, আবদুল মতিন চৌধুরী, ডা. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ, বিচারপতি মো. হাবিবুর রহমান, রফিকুল ইসলাম (বীর উত্তম), মোহাম্মদ নাসিম, বিচারপতি লতিফুর রহমান, এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, প্রফেসর ডা. ইয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ, মেজর জেনারেল এম এ মতিন (বীর প্রতিক), অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীর, শেখ হাসিনা ও বর্তমানে আসাদুজ্জামান খান কামাল দায়িত্ব পালন করছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদের মধ্যে বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ওই বছরের ১২ এপ্রিল পর্যন্ত দায়িত্বে ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই