মেইন ম্যেনু

স্বাধীনতা পদক পেলেন ১৫ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান

জাতীয় পর্যায়ে গৌরবোজ্জ্বল ও কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে আজ বৃহস্পতিবার ১৫ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে স্বাধীনতা পদক দেয়া হলো।

রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে তারা পদক গ্রহণ করেন। বেলা সাড়ে ১০টার দিকে পদক প্রদান অনুষ্ঠান শুরু হয়। পদক প্রদান শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্য দেন।

পুরস্কার হিসেবে প্রত্যেকের হাতে তুলে দেয়া হয় ৫০ গ্রাম ওজনের একটি ক্রেস্ট, সনদ ও তিন লাখ টাকার চেক। আগে এর অর্থমূল্য ছিল দুই লাখ টাকা।

প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত গঠন করার স্বীকৃতি হিসেবে এবার স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ ক্ষেত্রে স্বাধীনতা পদক দেয়া হয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতকে।

চিকিৎসায় বিশেষ অবদানের জন্য পুরস্কার পান শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ রফি খান (এম আর খান); বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে পাটের জীন রহস্য আবিষ্কার করে সাড়া ফেলে দেওয়া বিজ্ঞানী প্রয়াত মাকসুদুল আলমকে পুরস্কৃত করা হয়।

সাহিত্যিক ও কবি নির্মলেন্দু গুণ ছাড়াও পুরস্কার গ্রহণ করেন রবীন্দ্রসঙ্গীতশিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, একুশে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি আদায়ে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী আবদুস সালাম ও প্রয়াত রফিকুল ইসলাম; মুক্তিযুদ্ধে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী মুহা. ইমাজ উদ্দিন প্রমাণিক, সমাজসেবায় মরহুম মৌলভী আচমত আলী খান, মুক্তিযুদ্ধে অবসরপ্রাপ্ত স্কোয়াড্রন লিডার বদরুল আলম বীর উত্তম, শহিদ শাহ্ আব্দুল মজিদ; এম আবদুল আলী; সংস্কৃতিতে সৈয়দ হাসান ইমাম; বালাদেশের প্রথম সংবিধান স্বহস্তে লেখক প্রয়াত এ কে এম আবদুর রউফ; দিল্লিতে বাংলাদেশের প্রথম মিশন স্থাপনকারী কে এম শিহাব উদ্দিন এবং স্বাধীনতা যুদ্ধে অসামান্য অবদান এবং দেশের জলসীমায় স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় দায়িত্ব পালনরত বাংলাদেশ নৌবাহিনী।

পদক বিতরণ শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম। পরে তারা ফটোসেশনে অংশ নেন।






মন্তব্য চালু নেই