মেইন ম্যেনু

স্বামীকে ‘মোটা হাতি’ ডাকা ডিভোর্সের কারণ হতে পারে

স্বামীকে ‘মোটা হাতি’ বলে ডাকলে সেটা বিবাহবিচ্ছেদের (ডিভোর্স) জন্য একটি যৌক্তিক কারণ হতে পারে বলে রায় দিয়েছেন ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির একটি আদালত।

দিল্লি হাইকোর্ট আজ সোমবার ২০১২ সালে নিম্ন আদালতের দেয়া এ রকম একটি রায় বহাল রেখেছে। খবর বিবিসির।

স্বামীকে ‘মোটা হাতি’ বলে উল্লেখ করাকে ‘মানসিক বর্বরতার’ সঙ্গে তুলনা করেছিল নিম্ন আদালত।

এই মামলা যিনি করেছিলেন, ৩৫ বছর বয়সী ওই স্বামীর ওজন ছিল ১০০ কেজি।

আদালতে তিনি বলেন, অতিরিক্ত মোটা হওয়ার কারণে তার স্ত্রী তাকে প্রায়ই ‘মোটকা হাতি’ বলে ডেকে তাকে খোঁটা দিতেন; কারণ তিনি তার যৌন চাহিদা পূরণ করে তাকে সুখী করতে পারতেন না।

বিচারককে উদ্ধৃত করে ভারতীয় পত্রিকায় বলা হয়েছে, “হাতি বা মোটকা হাতি বলে ডাকা, যদিও তিনি মোটা হয়ে থাকেন, এটা আত্মমর্যাদা ও আত্মসম্মানের ওপর আঘাত হানারই সমান।”

“অবশ্যই এসব ডাকের ব্যাপারে বাদী স্বামী খুব স্পর্শকাতর ছিলেন। এবং বিবাদী স্ত্রী কৌতুক করে তার স্বামীকে এভাবে ডাকেননি। ডাকেননি ভালোবাসা কিংবা কোনো ধরনের আদরের বহিঃপ্রকাশ হিসেবেও।

আর স্ত্রীর বক্তব্য ছিল স্বামীর এসব অভিযোগ ভ্রান্ত এবং সুনির্দিষ্ট নয়।

তবে আদালত তার যুক্তি নাকচ করে দেন।






মন্তব্য চালু নেই