মেইন ম্যেনু

স্বাস্থ্যের উপকারিতায় ফুলকপি

ফুলকপি আমাদের দেশের খুবই পরিচিত একটি সবজি। এটি ব্রাসিকেসি পরিবারভুক্ত ব্রাসিকা অলেরাসিয়া (Brassica oleracea) প্রজাতির সবজিগুলোর একটি। এর বৈজ্ঞানিক নামও ব্রাসিকা অলেরাসিয়া (Brassica oleracea)। খুবই পুষ্টিকর একটি সবজি ফুলকপি। সতেজ এই সবজিটিকে বলা হয় পুষ্টির শক্তিকেন্দ্র।

অনেক গুণে গুণান্বিত এই সবজিটি। দেহে পুষ্টি সরবরাহের পাশাপাশি এর রয়েছে অনেক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। হৃদযন্ত্রে রক্ত সঞ্চালন প্রক্রিয়া স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে এটি। এমনকি ক্যান্সার প্রতিরোধক হিসেবেও রয়েছে এর ভূমিকা। এটি একটি চর্বিমুক্ত সবজি। এখানে ফুলকপির পাঁচটি অসাধারণ গুণের কথা তুলে ধরা হলো:

১. ক্যান্সার প্রতিরোধ: ফুলকপি প্রতিরোধ করতে পারে আপনার ক্যান্সার ঝুঁকি। ‍ফুলকপি ব্রাসিকা অলেরাসিয়া প্রজাতির সবজি। এই প্রজাতির সব সবজিই পাকস্থলির এবং মলদ্বারের ক্যান্সার প্রতিরোধে কার্যকর।

২. কোলস্টেরল হ্রাস: ফুলকপি রক্তের কোলস্টেরল কমাতে সহায়তা করে। এর ভেতর এক ধরনের দ্রবণীয় তন্তু থাকে যা রক্তের কোলস্টেরল কেটে নিয়ে যায়। এতে রক্তের প্রবাহ স্বাভাবিক থাকে।

৩. জীবানু রোধ: ফুলকপির মধ্যে ফিটোকেমিকেলস, গ্লুকোরাফানিন, গ্লুকোনাস্টারটিন এবং গ্লুকোব্রাসিসিন থাকায় তা দেহের ভেতরের বিভিন্ন জীবানু প্রতিরোধ করে। এই উপাদানগুলো একসাথে দেহের ক্ষতিকর উপাদান দূর করে।

৪. হৃদযন্ত্রের সুস্থতা: কোলস্টেরেল কমানোর পাশাপাশি রক্তনালীকেও শক্তিশালী রাখে ফুলকপি। এতে ভালো থাকে হৃদযন্ত্র। সবজিটির সালফোরাফেন উপাদানটি প্রদাহনাশক হওয়ায় তা রক্তনালীকে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়া থেকে রক্ষা করে।

৫. বাতের ব্যাথা দূর: প্রদাহনাশক উপাদান থাকায় ফুলকপি বাতের ব্যাথা দূরসহ হাড়ের জোড়ায় যেকোনো ধরনের ক্ষতি থেকে দেহকে মুক্ত রাখে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই