মেইন ম্যেনু

স্বাস্থ্য সুরক্ষায় গরমে এড়িয়ে চলবেন যেসব ফেব্রিক

গরমের সময় প্রচুর ঘাম হয়। সেই সাথে র‍্যাশ এবং চুলকানিও হতে পারে। এই ধরণের অস্বস্তিকর অবস্থাকে আরো বাড়িয়ে দেয় পরনের কাপড়টি যদি হয় সিনথেটিকের। ফ্যাশনের কারণে হয়তো অনেকেই গরমের সময়ও সিনথেটিকের কাপড় পরে থাকেন। কিন্তু ঘামে ও ঘামাচির যন্ত্রনায় যখন চুলকানি শুরু হয় তখন ফ্যাশনের বারোটা বেজে যায়। এধরণের অস্বস্তিকর পরিস্থিতি এড়িয়ে যাওয়ার জন্য গরমের সময় এড়িয়ে চলা উচিৎ যে ধরণের কাপড় সে বিষয়ে জানবো এই ফিচারে।

১। লেদার

লেদার বা চামড়ার তৈরি পোশাকের মধ্য দিয়ে বায়ু চলাচল করতে পারেনা। এজন্য এ ধরণের কাপড় পরলে অনেক গরম লাগে। যদি গরমের সময় লেদারের প্যান্ট পরেন তাহলে গরমতো লাগবেই সেই সাথে কোন কিছুতে আবদ্ধ হয়ে আছেন এমন অস্বস্তিকর অনুভূতিও হবে। তাই গরমের সময়টায় চামড়ার তৈরি পোশাক পরা উচিৎ নয়।

২। নেট

নেটের কাপড়ে বাতাস চলাচল করে ও ততোটা গরম ও লাগেনা। কিন্তু গরমের সময় এই ধরণের কাপড় ত্বকে যন্ত্রণা সৃষ্টি করতে পারে। নেটের কাপড় পরলে ত্বক লাল হয়ে যাওয়া সহ র‍্যাশ হতে পারে। যার ফলে অস্বস্তিকর অনুভূতি হতে পারে আপনার।

৩। পলিয়েস্টার

সবচেয়ে কমন সিনথেটিক কাপড় হচ্ছে পলিয়েস্টার। এটি সাধারণত শীতকালে ব্যবহার করা হয়। পলিয়েস্টার কাপড় পানি শোষণ করেনা এবং দীর্ঘসময় যাবৎ আর্দ্রতা ধরে রাখে। গরমের সময় এ ধরণের কাপড় পরলে গরম ভাপ ছড়াতে শুরু করবে। এটি যেহেতু আর্দ্রতা ধরে রাখে তাই আপনার ত্বক হয়ে উঠবে ইনফেকশন প্রবণ।

৪। সাটিন

প্রখর সূর্যতাপের দিনে সাটিনের কাপড় পরা অস্বাচ্ছন্দ্যকর। প্রথমত এটি খুবই ভারী এবং দ্বিতীয়ত এই কাপড়ের মধ্য দিয়ে বাতাস চলাচল করেনা। ফলে এ ধরণের কাপড় পরলে অনেক বেশি গরম লাগে এবং ঘাম বেশি হয় বলে ফাংগাল ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে। এছাড়াও ঘাম ও সাটিনের কাপড়ের পরস্পরের সংস্পর্শে আপনার দম বন্ধ ভাবের অনুভূতি হতে পারে।

৫। সিল্ক

যদিও সিল্ক প্রাকৃতিক আঁশ দিয়ে তৈরি কাপড় তারপরও এই কাপড় পানি প্রতিরোধী এবং পরিপূর্ণভাবে ঘাম শোষণ করেনা। কিন্তু এটি আর্দ্র হয়ে উঠে এবং ঘামের দুর্গন্ধ ছড়ায়। এ ধরণের কাপড়ে ঘামের দাগ পড়ে বিশেষ করে বগলে হলুদাভ দাগ ফেলে। সিল্কের কাপড়ের মধ্য দিয়েও সঠিকভাবে বাতাস চলাচল করতে পারেনা। তাই গরমে সিল্কের কাপড় পরলে ঘেমে অনেক বেশি গরম অনুভব করবেন।

৬। রেয়ন

সেলুলোজ দিয়ে তৈরি হয় রেয়ন কাপড় এবং অনেকেই একে সিনথেটিক কাপড় বলে মনে করেন না। এটি সিল্কের চেয়ে সস্তা হলেও খুব টেকসই নয়। রেয়নের কাপড় ও ঘাম শোষণ করেনা এবং এতে ঘামের দাগ পড়ে বেশি। এছাড়াও ত্বকে চুলকানি ও র‍্যাশ সৃষ্টি করতে পারে।

৭। নাইলন

আরেকটি সিনথেটিক কাপড় হচ্ছে নাইলনের কাপড় যা গরমে অবশ্যই এড়িয়ে চলা উচিৎ। সাধারণত মোজা ও ব্যায়ামের পোশাক (যা জিমে ব্যবহার করা হয়) তৈরিতে ব্যবহার করা হয় নাইলনের কাপড়। এ ধরণের কাপড়ের ভেতরে তাপ আবদ্ধ হয়ে থাকে বলে গরম অনুভব হয়। গরমের সময় এ ধরণের কাপড় যন্ত্রণার সৃষ্টি করে।

গরমের সময়ের জন্য সবচেয়ে সুবিধাজনক ও আরামদায়ক কাপড় হচ্ছে সুতি কাপড়। সুতি কাপড়ে খুব সহজে ঘাম শোষণ হয় এবং এই কাপড়ের মধ্য দিয়ে বায়ু চলাচল করতে পারে ফলে ঠান্ডা অনুভূতি দেয়। লিনেন এবং খাদি কাপড় ও গরমের দিনের জন্য ভালো। এছাড়াও হালকা রঙের কাপড় পড়া উচিৎ গরমের সময়।






মন্তব্য চালু নেই