মেইন ম্যেনু

স্মার্ট ঢাকা গড়তে সহযোগিতা না করলে খবর আছে

ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আনিসুল হক বলেছেন, ঢাকা শহরকে যানজট এবং ফুটপাত দখলমুক্ত করতে নানা ধরনের কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নে উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সহযোহিতা চাই। যে কো-অপারেট করবে না, তার খবর আছে বলেও হুঁশিয়ারি করেন তিনি।

সোনারগাঁও হোটেলে এই মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

নিজের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া নিয়ে মতামত নিতে শনিবার গণমাধ্যমের সম্পাদকদের সঙ্গে বৈঠক করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক।

দায়িত্ব নেয়ার নয় মাসে ঢাকা শহরকে যানজটমুক্ত এবং ফুটপাতগুলো দখলমুক্ত করতে নানা ধরনের কর্মসূচি নেয়ার কথা তুলে ধরেন আনিসুল হক। উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশে তিনি বলেন, “আমি এতে সবার সহায়তা চাই। যে কো-অপারেট করবে না, তার খবর আছে।”

তিনি বলেন, “এপ্রিলের মধ্যে ঢাকা উত্তরের ফুটপাত দখলমুক্ত করা হবে। নিরাপত্তার জন্য জুনের মধ্যে এক হাজার সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হবে। দেয়াল লিখন বন্ধ করা হবে। কোনো অবৈধ বিল বোর্ড স্থাপন করতে দেয়া হবে না।”

দুই মাস পর রাস্তায় কোনো আবর্জনা থাকবে না বলে ঘোষণা দেন মেয়র। পরিবহন সঙ্কট নিরসনে তিন হাজার নতুন বাস রাস্তায় নামানোর পাশাপাশি পুরনোগুলো তুলে নেয়ার কথাও বলেন তিনি।

ঢাকা শহরকে সুন্দর করে গড়ে তুলতে জনসচেতনতামূলক খবর পরিবেশনের জন্য জাতীয় দৈনিকগুলোকে প্রতিদিন ‘দুই ইঞ্চি’ জায়গা বরাদ্দ দিতে সম্পাদকদের অনুরোধ করেন মেয়র আনিসুল হক।

সভায় প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান, ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম, সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার, জনকণ্ঠ সম্পাদক আতিকউল্লাহ খান মাসুদ, ফাইন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেসের সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন, মানবজমিন সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, আমাদের অর্থনীতির সম্পাদক নাইমুল ইসলাম খান, ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম, বণিক বার্তার সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ, ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহান বক্তব্য রাখেন।






মন্তব্য চালু নেই