মেইন ম্যেনু

স্লোভাকিয়াকে বিধ্বস্ত করে শেষ আটে জার্মানি

শক্তির ব্যবধানটা খুব স্পষ্ট। একদিকে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি। অন্যদিকে ইউরোপিয়ান লেভেলে মোটামুটি মানের একটি দল স্লোভাকিয়া। এই দলটির বিপক্ষে নিরঙ্কুশভাবে ফেভারিট বিশ্বচ্যাম্পিয়নরাই। তবে সেটা তো মাঠে দেখাতে হবে! সেই দেখানোর কাজটাই করে দিলেন ওজিল-মুলার-ক্রুসরা।

স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশ স্লোভাকিয়াকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে জার্মানি। একই সঙ্গে খুব সহজেই কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নিলো জোয়াকিম লো’র শিষ্যরা। লিলের গ্র্যান্ড স্টেডে মেট্রোপোলে জার্মানদের হয়ে গোল তিনটি করেন জেরোমে বোয়াটেং, মারিও গোমেজ এবং হুলিয়ান ড্রাক্সলার। মেসুত ওজিলের একটি পেনাল্টি মিস না হলে তো ব্যবধান আরও বাড়তে পারতো।

এবারের ইউরোয় কিন্তু জার্মানিকে ঠিক জার্মানদের মত লাগছিল না। কেমন যেন নিষ্প্রভ নিষ্প্রভ। তবে গ্রুপ পর্ব পার হয়ে এসে ঠিকই খোলস ছাড়তে শুরু করে দিয়েছে জোয়াকিম লোর দল। স্লোভাকিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবলের পসরা সাজিয়ে বসে জার্মানি। যার ফলশ্রুতিতে ম্যাচের মাত্র ৮ম মিনিটের মাথায় গোল করে জার্মানিকে এগিয়ে দেন ডিফেন্ডার জেরোমে বোয়াটেং।

কর্নার কিক থেকে ভেসে আসা বল ডি বক্সের মধ্যে ফিরে আসছিল। তবে ফিরতি বলটি পেয়েই ডি বক্সের ঠিক সামনে থেকে ডান পায়ের মাটি কামড়ানো জোরালো এক শট নেন তিনি। দুই জন ডিফেন্ডার এবং গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে সোজা বলটি জড়িয়ে গেলো স্লোভাকদের জালে।

দ্বিতীয় গোলটি আসতে প্রথমার্ধের শেষ দিক পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছে জার্মানদের। তবে খেলার ১৩তম মিনিটে পেনাল্টি পায় জার্মানি। স্পট কিক নিতে আসেন মেসুত ওজিল। তার বাম পায়ে নেয়া শটটি স্লোভাকিয়ার গোলরক্ষক ফিরিয়ে দেয়। সুতরাং গোল বঞ্চিত হয় জার্মানি।

এরই মধ্যে হজম করা গোলটি শোধ করতে মরিয়া হয়ে ওঠে স্লোভাকরা। কিন্তু জার্মান রক্ষণদুর্গ ভাঙতে পারলে তো। ৪৩তম মিনিটে এসে মারিও গোমেজের গোলে আবারও এগিয়ে যায় জার্মানরা। জুলিয়ান ড্রাক্সলারের কাছ থেকে বল পেয়ে দারুন এক শটে স্লোভাকিয়ার জালে বল প্রবেশ করান গোমেজ।

২-০ গোলেই শেষ হয় প্রথমার্ধ। দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর পরও আক্রমণের ধার কমায়নি জার্মানরা। ৬৩তম মিনিটে দারুণ এক ভলিতে স্লোভাকদের জালে বল পাঠিয়ে দেন হুলিয়ান ড্রাক্সলার। এরপর অবশ্য জার্মানির আরও কয়েকটি সহজ সুযোগ মিস করার কারণে ব্যবধান বাড়ানো সম্ভব হয়নি। শেষ পর্যন্ত ৩-০ গোলের ব্যবধানেই মাঠ ছাড়ে দু’দল।






মন্তব্য চালু নেই