মেইন ম্যেনু

সড়কটি মরার উপর খড়ার ঘাঁ, দেখার কেউ নেই

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার দাদপুর-চিতারবাজারসহ বিভিন্ন এলাকার যোগাযোগের একমাত্র সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল থাকায় অবর্ননীয় দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে এই অঞ্চলের কয়েক লাখ মানুষ। দীর্ঘদিন ধরে এ সড়কটি বেহালদশা থাকায় প্রতিদিনই ঘটছে ছোট-বড় কোন দুর্ঘটনা।

স্থানীয়রা একাধিকবার বিষয়টি নিয়ে এমপি-উপজেলা চেয়ারম্যান, স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ করলেও কোন ফল হয়নি। বর্তমানে বর্ষা মৌসুমে এ সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল একেবারেই দুরুহ হয়ে পড়েছে। বেশীর ভাগ যানবাহন এ সড়ক দিয়ে চলাচল না করায় ভোগন্তির মধ্যে পড়েছে জনসাধারন।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, বোয়ালমারীর চিতার বাজার-দাদপুর সড়কটির প্রায় ৯ কিলোমিটার বেহাল দশা রয়েছে কমপক্ষে ১০/১২ বছর যাবত। বেশ কয়েকবার জনপ্রতিনিধিদের কাছে আবেদন করেও কোন সুফল পাননি স্থানীয়রা। ফলে রাগে-ক্ষোভে তারা এখন আর কোন অভিযোগই করেন না। চিতার বাজার এলাকায় আবদুল হক জানান, স্থানীয় এমপি, চেয়ারম্যানের কাছে এ সড়কটির বিষয়ে একাধিকবার বলা হলেও তারা কোন কর্নপাত না করায় এখন সড়কটি নিয়ে কথা বলা বাদ দিয়েছেন।

স্থানীয় জনগন এটিকে ‘নিয়তি’ হিসাবেই মেনে নিয়েছেন। ফরিদপুরের সাথে বোয়ালমারীর চিতার বাজার, কানাইপুর, সালথা, বাহিরদিয়া, বিভাগদি, নকুলহাটি, বঙ্গেশ্বরদী, চাঁদপুর, ময়েনদিয়া, বাজিতপুরসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়নের হাজারো লোকজন প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে চলাচল করে থাকে।

সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করায় বর্তমানে এ সড়ক দিয়ে চলাচল দুস্কর হয়ে পড়েছে। সড়কটির এতটাই বেহালদশা যে-এ সড়ক দিয়ে ট্রাক-নসিমন চলাচলও বন্ধ করে দিয়েছে চালকেরা। ফলে চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে হাজারো মানুষ। স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেছেন, সড়কটি সংস্কার না করায় হাসপাতালে রোগী নেবার ক্ষেত্রে চরম বিড়ম্বনার মধ্যে তাদের পড়তে হচ্ছে।

তাছাড়া পণ্য আনা নেবার ক্ষেত্রেও অসুবিধার সম্মুখিন হচ্ছেন তারা। সড়কটির বিষয়ে দাদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামীম মোল্যা জানান, দীর্ঘদিন ধরে সড়কটি বেহালদশা অবস্থায় রয়েছে। প্রতিবারই মাসিক সভায় বিষয়টি উপস্থাপন করা হয়। এবারও হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ আশ্বাস দিয়েছে। আশা করছি এবার বিষয়টির সুরাহা হবে।






মন্তব্য চালু নেই