মেইন ম্যেনু

হজমের দুর্বলতায় ভুগছেন যারা? দেখুন হজম শক্তি বাড়াতে কার্যকর ঘরোয়া টোটকা

হওয়ার সমস্যায় অনেকেই ভোগেন। মশলাদার খাবার খাওয়ার পর ওষুধ খেয়ে খাবার হজম করান অনেকেই। কি আর করা করা যাবে মশলাদার খাবার না খেলে কি আর চলে! কিন্তু তা বলে ওষুধ খেয়ে হজম করানোর কোনও মানেই হয় না। তার বদলে ভারী অথবা মশলাদার খাবার খাওয়ার পরে ওষুধের বদলে এমন কিছু খান, যা রোজকার রান্নাতে ব্যবহার করা হয়। এছাড়া যথেষ্ট সহজলভ্যও এই জিনিসগুলি। তাহলে এবার এক ঝলকে দেখে নিন ওষুধের বদলে কি খেলে চট জলদি হয়ে যাবে হজম হবে আপনার…

এলাচ : সাধারণত রান্নাতে ভালো গন্ধ হওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয় এলাচকে। কিন্তু হজমের জন্যও ব্যবহৃত হয় এলাচ। এলাচে ভোলাটাইল তেল থাকে। যা গ্যাস এবং বদ হজমের হাত থেকে রক্ষা করে। এছাড়া মুখে দুর্গন্ধ ছাড়লে এবং পেটের আলসার এড়িয়ে চলতে অবশ্যই খেতে পারেন এলাচ। খাবার খাওয়ার পরে এলাচের কয়েকটা দানা নিয়ে খেয়ে নিতে পারেন। এছাড়া লিকার চায়ের সঙ্গে এলাচের দানা মিশিয়ে খেতে পারেন। এটি যে কোনও পেটের সমস্যা নিরাময়ে সক্ষম।

মৌরি : মৌরি সাধারণত মুখ শুদ্ধি হিসেবে কাজ করে। এটি মুখের মধ্যে থাকা ব্যাকটেরিয়া নির্মূল করে। খালি পেটে মৌরি খেলে গ্যাসট্রিকের সমস্যা দূর করা যায়। এছাড়া হজম শক্তি বাড়াতেও সাহায্য করে মৌরি।

আদা : পেটে ব্যথা হলে এবং গ্যাসের সমস্যার সম্মুখীন হলে অবশ্যই আদা খেতে পারেন। চিকিতসাবিজ্ঞানে আদাকে ভেষজ ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা হয়। হজম শক্তি বাড়াতেও সাহায্য করে আদা। সব থেকে বড় ব্যপার সর্দি কাশির ক্ষেত্রেও আদা খুবই উপকারি।

পান : বহু যুগ থেকে ভারতে খাবার খাওয়ার পরে পান খাওয়ার প্রচলন ছিল। কিন্তু তখন মানুষ বেশিরভাগটাই নেশার জন্যই খেয়ে থাকতেন। তবে তাঁরা অজানতে খেলেও এই পান শরীরের হজম শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বাড়াতেও সাহায্য করে। এছাড়া হার্ট ভালো রাখে, গ্যাসের সমস্যা দূর করে, শরীরে খারাপ টক্সিনের পরিমাণ কমিয়ে লিভার ভালো রাখতে সাহায্য করে।

মিছরি : মিছরি জলে মিশিয়ে খেলে অথবা শুধু খেলে পেট ঠান্ডা হয়। ঠান্ডা লাগলেও এই মিছরি খেলে খুব ভালো কাজ হয়। এছাড়া মুখ শুদ্ধি হিসেবেও কাজ করে এই মিছরি।






মন্তব্য চালু নেই