মেইন ম্যেনু

হঠাৎ চাকরি গেলে কি করবেন ?

বেসরকারি চাকরি আজ আছে তো কাল নেই৷ প্রতি মুহূর্তেই নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন কর্মীরা৷ কর্মক্ষেত্রের একটা ভুল, আর তাতেই চাকরি ঘচাং ফু৷ আর হঠাৎ করে চাকরি চলে যাওয়ার যে কী জ্বালা, যাঁর যায়, তিনিই জানেন৷ মাথার উপর আকাশ ভেঙে পড়ে৷ বিবাহিত ব্যক্তিরা এক্ষেত্রে আরও বেশি সমস্যায় পড়েন৷ প্রফেশনাল জীবনে বিশেষ ঝামেলার জন্য অনেকেই হঠাৎ করে চাকরি ছাড়তে বাধ্য হন৷ আবার কোম্পানিও অসন্তুষ্ট হয়ে টার্মিনেশন লেটার হাতে ধরা পারে৷ এমন কঠিন পরিস্থিতিতে কীভাবে আর্থিক সঙ্কট মেটাবেন৷ এই প্রতিবেদনে কয়েকটা পথ বাতলানো হল৷

লোন প্রোটেক্টিং প্ল্যান – এমন অনেক জীবনবিমা কোম্পানি আছে যারা চাকরিহারাদের বিশেষ কিছু শর্তে লোন দিয়ে থাকে৷ একটি জীবনবিমা কোম্পানির সঙ্গে কথা বলে জানা গিয়েছে, কোনও ব্যক্তির হঠাৎ চাকরি গেলে তারা সেই ব্যক্তির শেষ তিন মাসের বেতনের সমান অর্থ লোন হিসেবে দেয়৷

বিনিয়োগের পুনর্বিবেচনা – রেকারিং বা মিউচুয়াল ফান্ডের মতো কোনও বিনিয়োগ করে থাকলে সময় এসেছে ভাববার৷ চেষ্টা করুন ব্যাঙ্কের সঙ্গে কথা বলে সেগুলিকে বন্ধ করা যায় কি না৷ কারণ প্রতি মাসে এতগুলো টাকা গোনা কষ্টকর হয়ে উঠতে পারে৷

খরচে কাটছাঁট – দৈনন্দিন জীবনের অপ্রয়োজনীয় খরচগুলো বন্ধ করে দিন৷ মাসে দু’দিন রেস্তোরাঁয় না খেলে বা সিনেমা হলে ছবি না দেখলেও অনেকটা সাশ্রয় করা সম্ভব হবে৷ মাসের শুরুতেই খরচের একটা তালিকা বানিয়ে ফেলুন৷ দেখে নিন কত খরচ করলে মোটামুটি মাস কেটে যাবে৷ সেভাবেই এগোতে থাকুন৷

পার্টটাইম চাকরি – যতদিন না পছন্দ মতো আরেকটি চাকরি পাচ্ছেন, ততদিন পার্টটাইম চাকরি করতেই পারেন৷ এতে নতুন চাকরি খুঁজতেও অসুবিধা হবে না৷ আবার হাত খরচাও পকেটে ঢুকবে৷ বিভিন্ন চাকরির ওয়েবসাইটগুলো এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করতে পারে৷

ইএমআই সমস্যা – চাকরি থাকাকালীন অনেকেই অনেক ধরনের লোন নিয়ে থাকেন৷ বাড়ি, গাড়ি, বাচ্চাদের পড়াশুনা অথবা সামান্য এসি কেনার জন্য লোন নেওয়া থাকলে মাসিক ইএমআই দেওয়াটা চাপের হয়ে দাঁড়াতে পারে৷ সেক্ষেত্রে দু’টি কাজ করা যেতে পারে৷ যে সংস্থা বা ব্যাঙ্ক থেকে লোন নিয়েছেন, তাদের সঙ্গে কথা বলে দেখুন তারা ইএমআই-এর মেয়াদ বাড়াতে পারবে কি না৷ তাহলে প্রতি মাসে ইএমআই-এর পিছনে তুলনামূলক কম খরচ হবে৷ তবে এক্ষেত্রে অনেক সময় পেনাল্টি গুনতে হতে হয়৷ তাই জেনে বুঝে সিদ্ধান্ত নিন৷ এ পথে না হাঁটলে প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা তোলার জন্য আবেদন জানাতে পারেন৷ সেই অর্থ সঙ্কট কাটাতে নিঃসন্দেহে সাহায্য করবে৷ তবে ভবিষ্যৎ ভেবে কাজ করবেন৷






মন্তব্য চালু নেই