মেইন ম্যেনু

হরতাল ডেকে মাঠে নেই জামায়াত

মানবতাবিরোধী অপরাধী আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের ফাঁসির দণ্ডের প্রতিবাদে জামায়াতের হরতালে দেশবাসী তো দূরের কথা, সাড়া দেয়নি স্বাধীনতাবিরোধী দলটির নেতা-কর্মীরাও। রাজধানী, মহাসড়ক, মফস্বল শহর, উপজেলা বা গ্রাম এলাকা-কোথাও এতটুকু প্রভাব দেখা যায়নি হরতালের। যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক প্রায়। কেবল কোথাও কোথাও সশস্ত্র নিরাপত্তাকর্মীদের সতর্ক অবস্থানই যেন হরতাল কর্মসূচির বিষয়টি জানাচ্ছে নাগরিকদের।

সকাল পৌনে আটটাতেই বিমানবন্দর সড়কের কাকলী মোড়ে দীর্ঘ যানজট দেখা গেছে। এরপর চেয়ারম্যান বাড়ি, মহাখালী এফডিসি বা মগবাজার মোড় দিয়ে আসার সময়ও দেখা গেছে যানজট। ফার্মগেট, কারওয়ানবাজার, শাহবাগ মোড়েও যানবাহনের কমতি দেখা যায়নি।
আমাদের প্রতিনিধিরা জানাচ্ছেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট, ঢাকা-দিনাজপুর মহাসড়কে চলছে ‍দূরপাল্লার যানবাহনও। হরতালের পক্ষে রাজধানী বা দূর গ্রামে কোথাও জামায়াত-শিবিরের কর্মীদের তৎপরতা চোখে পড়েনি এতটুকু। এমনটি জামায়াত-শিবির প্রভাবিত এলাকাতেও কোন ধরনের গোলযোগের খবর পাওয়া যায়নি।

সড়কগুলোতে স্বাভাবিক কর্মদিবসের মতোই চলছে গণপরিবহণ। ব্যক্তিগত গাড়িও কম নয়। সকাল থেকেই সব শ্রেণি-পেশার মানুষ ছুটছেন নিজেদের কর্মক্ষেত্রে। ট্রেন, লঞ্চ ও বিমানও চলছে স্বাভাবিক।

অফিস-আদালত, দোকানপাট, ব্যাংক ও আর্থিকপ্রতিষ্ঠানগুলো খোলা রয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধের শেষ দিকে বুদ্ধিজীবী হত্যার দায়ে শনিবার গভীর রাতে ফাঁসি কার্যকর হয় জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদ ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর। এর প্রতিবাদে আজ সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডাকে জামায়াত। ৪৪ বছর পর এই বিচারে দেশবাসী উৎফুল্লা হলেও জামায়াত একে বিচারের নামে হত্যা দাবি করে দেশবাসীকে প্রতিবাদ জানানোর আহ্বান জানিয়েছিল।






মন্তব্য চালু নেই