মেইন ম্যেনু

হাইকমিশনারকে তলব, ৭১’র নৃশংসতা অস্বীকার পাকিস্তানের!

মানবতাবিরোধী অপরাধে দুইজনের ফাঁসি কার্যকরকে কেন্দ্র করে এবার বাংলাদেশের হাইকমিশনারকে তলব করেছে পাকিস্তান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সোমবার বিকালে পাকিস্তানে নিযুক্ত বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার মৌসুমী রহমানকে তলব করা হয়।

মানবতাবিরোধী অপরাধী বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর করার পর পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দপ্তারের উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা প্রকাশের জবাবে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র দপ্তর গত ২৩ নভেম্বর ঢাকায় পাকিস্তানের হাইকমিশনারকে তলব করে। তখন বাংলাদেশের পক্ষ থেকে একটি কড়া প্রতিবাদপত্র ধরিয়ে দেয়া হয়।এরই পাল্টা হিসাবে পাকিস্তান বাংলাদেশের হাইকমিশনারকে তলব করলো বলে মনে করা হচ্ছে।

একই সঙ্গে ১৯৭১ সালে সংগঘঠিত গণহত্যা বা নৃশংসতাকে পাকিস্তান অস্বীকার করেছেন। এছাড়া পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, একাত্তরে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের অভিযোগকে ভিত্তিহীন ও ধারনাপ্রসূত হিসাবে আখ্যায়িত করে তা প্রত্যাখ্যান করা হয়। পাকিস্তান তার সর্বশেষ বিবৃতিতে বলেছেন, এসব অভিযোগ সত্য থেকে অনেক দূরে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক পাকিস্তানে নিযুক্ত বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনারকে তলব করেছেন। গত ২৩ নভেম্বর বাংলাদেশ সরকার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যে ভিত্তিহীন ও অমূলক অভিযোগ এনে নোট দিয়েছিল তাও প্রত্যাখ্যান করছে পাকিস্তান সরকার। একই সাথে যুদ্ধের নৃশংসতায় পাকিস্তানের সম্পৃক্ততা নিয়ে যে পরোক্ষ ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছিল তাও প্রত্যাখ্যান করা হচ্ছে।’

এর আগে গত ২৫ নভেম্বর দেশটির জাতীয় পরিষদের সদস্য শেখ আফতাব আহমেদ জানিয়েছিলেন, পাকিস্তানে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনারকে তলব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান সরকার।

প্রসঙ্গত, সাকা চৌধুরী ও মুজাহিদের ফাঁসির রায় কার্যকর করার পর এক বিবৃতিতে এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে পাকিস্তান সরকার। এর পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশে নিযুক্ত পাকিস্তানের হাইকমিশনার সুজা আলমকে তলব করে ‘কড়া প্রতিবাদ’ জানিয়েছে বাংলাদেশ।






মন্তব্য চালু নেই