মেইন ম্যেনু

হাতে ‘অর্ধ চাঁদ’ থাকলে আপনি যেমন মানুষ

জ্যোতিষশাস্ত্র এবং অন্যান্য ভবিষ্যত নির্ণায়ক জ্ঞানসম্মত উপায় ছাড়াও এখনো প্রাচীন অনেক চর্চা রয়েছে, যা মানুষের ভবিষ্যত বলে দিতে পারে বলে মানুষ বিশ্বাস করে। এমনই একটি প্রাচীন পদ্ধতি হলো হস্তরেখাবিদ্যা বা মানুষের হাতের রেখা দেখে ভবিষ্যত বলে দেয়ার বিদ্যা। যার মাধ্যমে আপাতদৃষ্টিতে মানুষের বিবাহ, কর্মজীবন এবং এমনকি বিদেশে যাত্রার সম্ভাবনা সম্পর্কে অনেক কিছু বলে দেয়া যায় বলে দাবী করা হয়।

কী চমকে উঠলেন তো? হ্যা, চমকে উঠাটাই স্বাভাবিক। তবে অনেকেই কিন্তু জীবনের কোনো না কোনো সময় প্রাচীন এই ভাগ্য নির্ণায়ক পদ্ধতির চাক্ষুস সাক্ষী হয়েছেন।

যা হোক, এখানে হস্তরেখাবিদ্যার কিছু মতবাদ তুলে ধরা হলো, যা আপনাকে হয়তো প্রাচীন এই পদ্ধতিটি সম্পর্কে আরো আগ্রহী করে তুলতে পারে!

আপনার হাতের তালুতে থাকা ‘হার্ট লাইন’ রেখা, যেটি আপনার হাতের ছোট আঙুলের গোঁড়া থেকে শুরু হয়েছে, এর মাধ্যমে দৃশ্যত আপনার সম্পর্কে অনেক কিছু বলতে বলে দেয়া যেতে পারে। আপনি আপনার উভয় হাতের তালু একসঙ্গে করুন এবং দেখার চেষ্টা করুন কী প্যাটার্ন তৈরি হলো।

এক্ষেত্রে অধিকাংশ মানুষের উভয় হাতের রেখার সমন্বয়ে একটি ‘অর্ধ চাঁদ’ তৈরি হয়। যদি আপনার দুটি হাতের তালুর হার্ট লাইন মিলিয়ে অর্ধ চাঁদ তৈরি করে তাহলে আপনি শক্ত মনের মানুষ, নিজের ওপর বিশ্বাস আছে এবং নিজেকে মূল্যায়ণও করতে পারেন আপনি তা বোঝায়। এছাড়া অর্ধ চাঁদ রেখা তৈরির মাধ্যমে আরো বোঝায়, আপনি বেশ চার্মিং ও প্রেমিক প্রকৃতির। কিন্তু নিজের ভালোবাসার কথা মুখ ফুটে বলেন না। অত্যন্ত দৃঢ়মনা, দৃঢ ব্যক্তিত্বের বলে যেকোনো কঠিন পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে পারেন। কোনো পদক্ষেপ নিতে ভীত নন।

যদি এই রেখা দুটো মিলে অর্ধ চাঁদ তৈরি না করে, সরলরেখা তৈরি করে তবে তারও আলাদা অর্থ আছে। এরকম হলে আপনি খুব শান্ত প্রকৃতির মানুষ। যে কোনো কাজ খুব সহজে করে ফেলতে পছন্দ করেন।

আর যদি দুটো রেখা অর্ধ চাঁদ তৈরি না করে ওপর-নীচ হয় তাহলে আপনি খুব পরিণত প্রকৃতির মানুষ। এবং আপনার সঙ্গে বয়সে বড় মানুষদের সঙ্গেই আপনার বন্ধুত্ব হয় বেশি। মানুষ আপনাকে নিয়ে কী ভাবে তা নিয়ে আপনার সামান্য আগ্রহও নেই।

হস্তরেখাবিদ্যা অনুযায়ী আপনার জীবন আপনার হাতেই!






মন্তব্য চালু নেই