মেইন ম্যেনু

হাসপাতালের বিলে কারচুপি : ডাক্তাররা যেভাবে রোগীকে ঠকায়, জানুন ১২টি মারাত্মক তথ্য

হাসপাতালের বিল নিয়ে সমস্যা শুধু কলকাতার নয়। এটা শুধু এই দেশের সমস্যা ভাবলেও ভুল হবে। গোটা পৃথিবীতেই এই সমস্যা চলছে। সর্বত্রই রোগী ঠকানোর কারচুপি চলে। সম্প্রতি একটি প্রতিবেদনে দেখা গিয়েছে, আমেরিকায় হাসপাতালের বিলের ১০টির মধ্যে ৮টিতেই বেশি টাকা দেখানো রয়েছে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই কেউ প্রশ্ন তোলে না কারণ, নজরেই পরে না। আর হাসপাতালকে সেটা দেখালে ভুল স্বীকার করে বাদ দিয়ে দেয়। কিন্তু সেই ভুল কি ইচ্ছাকৃত?

সম্প্রতি কলকাতার বেশ কয়েকটি হাসপাতালের বিল নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। চলছে বিতর্ক। কিন্তু অনেকের কাছেই অজানা হাসপাতালের বিল মেটানোর আগে কী কী দেখে নেওয়া উচিত। কোথায় কোথায় পাতা থাকে রোগী ও রোগীর পরিবারকে ঠকানোর ফাঁদ।

হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগে বা সেই সময়ে এবং বাড়ি ফেরার আগে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে অবশ্যই নজর দেওয়া উচিত। এগুলি শুধু হাসপাতালের কারচুপি ধরার জন্যই নয়, নিজের স্বাস্থ্য বিমার টাকা ঠিক ভাবে পাওয়ার জন্যও জরুরি।

১। হাসপাতাল থেকে ছাড়ার সময়ে সব কাগজ পত্র বুঝে নিন। মিলিয়ে দেখুন কী কী খরচের বিল করা হয়েছে। সব সময়ে ‘আইটেমাইজড বিল’ চান।

২। কোনও রকম কারচুপির সন্দেহ হলেই সে জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের থেকে লিখিত ব্যাখ্যা চান।

৩। কোন চিকিৎসার জন্য কোন ঘরে রাখা হচ্ছে আগেই জেনে নিন। আদৌ দামি কেবিনে রাখার দরকার কিনা সেটা নিয়ে প্রশ্ন করুন। প্রয়োজনে লিখিত ভাবে কারণ জানতে চান।

৪। যে যে পরীক্ষা করতে বলা হচ্ছে তা যেন প্রেসক্রিপশনে লিখিত থাকে। একই পরীক্ষার খরচ বিলে একাধিক বার দেখানো হতে পারে।

৫। কোনও পরীক্ষা হাসপাতালের বাইরে করানো হয়েছে কিনা সেটাও আগে থেকে জানানোর কথা হাসপাতালের। না জানিয়ে করলে প্রশ্ন তুলুন।

৬। রোগী ভর্তি থাকার সময়ে কোন চিকিৎসক কত বার এসেছেন তা প্রথম থেকেই নোট রাখুন। বিলের সঙ্গে মিলিয়ে নিন। একই সঙ্গে খেয়াল করুন অপ্রয়োজনীয় কোনও বিশেষজ্ঞের জন্য আপনাকে ফি দিতে হচ্ছে কিনা।

৭। যদি মধ্য রাতে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়ে থাকে তবে দেখুন আগের দিনকেও বিলের অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে কিনা।

৮। রোগীর খাবার, স্যানিটাইজার, বিছানার চাদর, টুথ পেস্ট, ব্রাশ ইত্যাদি অনেক কিছুই বেড ভাড়ার সঙ্গে যুক্ত থাকে। এগুলি আলাদা করে চার্জ করা হয়নি তো।

৯। অপরেশন থিয়েটারে ঠিক কতক্ষণ ছিলেন রোগী তা খেয়াল রাখুন। ওটি ভাড়া সংক্রান্ত খরচ আগেই জেনে নিন। পরে বিলের সঙ্গে মিলিয়ে দেখুন।

১০। রোগীকে ঠিক কী কী ওষুধ দেওয়া হয়েছে, তার বাজারের দাম কত তা মিলিয়ে দেখুন। এই পথে বিপুল টাকার কারচুপি হওয়ার সম্ভাবনা।

১১। একই সঙ্গে একাধিক অপরেশন হলে বেশ কিছু খরচ একবারই করতে হয়। সেগুলি বিলে একাধিকবার দেখানো হয়েছি কিনা পরীক্ষা করুন।






মন্তব্য চালু নেই