মেইন ম্যেনু

হাসপাতালের বেজমেন্টে মধুচক্র, ১২ জন আটক

একটি বেসরকারি হাসপাতাল। বন্ধ হয়েছিল আগেই। রোগী যাওয়া বন্ধ হলেও ‘রসিয়া’দের আসা-যাওয়া বেশ বেড়েছিল। প্রতিদিন বসতো মধুচক্র।

বিশেষ সূত্রে খবর পেয়ে, শুক্রবার আগ্রার সেই মধুচক্রে হানা দেয় পুলিশ। হানা দেয়া হয় বন্ধ হাসপাতালটির অদূরেই আরও একটি হোটেলে। দু-জায়গা মিলিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় ৬ নারীসহ মোট ১২ জনকে।

ঘটনাটি ঘটেছে তাজমহলের জন্য স্বনামধন্য আগ্রায়। পুলিশ জানিয়েছে, আগ্রা ছাড়াও দিল্লি ও কলকাতা থেকেও মেয়েদের আনা হয়েছিল।

আগ্রার সিকান্দরা থানার এক পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এদিন আচমকাই দুটি জায়গাতে হানা দেয়া হয়। জাতীয় সড়ক-২ লাগোয়া ওই হাসপাতালটি ছাড়াও হোটেলে গোপনে চলছিল মধুচক্র। বিশেষ সূত্রে খবর পেয়ে আচমকাই হানা দেয়া হয়। দেহব্যবসা চালানোর অভিযোগে হোটেল মালিক গুড্ডু যাদবকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারলেও, হাসপাতালটির মালিককে এখনও ধরা যায়নি।

পুলিশ জানায়, ক্লায়েন্টদের চাহিদা মেনে কলকাতা ও দিল্লি থেকেও এরা মেয়ে নিয়ে আসত। এদিন যে ৬টি মেয়েকে উদ্ধার করা হয়েছে, তাঁদের মধ্যেও দুজন কলকাতার ও দুজন দিল্লির। অন্য দুজন আগ্রারই তরুণী।

দুই মালিক-সহ মধুচক্র থেকে ধৃতদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ২৯৪ ধারা ও অনৈতিক ট্রাফিক (প্রতিরোধ) আইনের ৪, ৫ ও ৭ ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। উদ্ধার হওয়া নারীদের পাঠানো হচ্ছে হোমে।






মন্তব্য চালু নেই