মেইন ম্যেনু

হিজাব পরায় রেস্টুরেন্ট থেকে বিতাড়ন

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যে একটি রেস্টুরেন্টে হিজাব পরে ঢুকায় ৭ নারীকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ব্রিটেনের পত্রিকা দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়, লেগুনা সৈকতের উর্থ ক্যাফে নামে রেস্টুরেন্ট থেকে ২২ এপ্রিল তাদের বের করে দেওয়া হয়।

তবে রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তারা দাবি করে, ওই নারীরা রেস্টুরেন্টে নিয়মের চেয়ে বেশিক্ষণ বসে থাকায় তাদের বের করে দেওয়া হয়েছে। উর্থ ক্যাফেতে একজন সর্বোচ্চ ৪৫ মিনিট বসে থাকতে পারেন।

কফি ও চা পান করার সময় ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তাকর্মীদের দিয়ে তাদের বের করে দিয়েছে বলে জানান তারা।

সেই নারীদের ১ জন সারা ফার্সাক (২৯) দ্য গার্ডিয়ানকে বলেন, ‘আমি ঘরে গিয়ে সারারাত ঘুমাতে পারিনি। যা ঘটেছিল তা নিয়ে আমি খুবই কষ্ট পেয়েছিলাম।’

ফার্সাক তার ফেসবুক পোস্টে একটি ভিডিওতে দেখান সেখানে অনেক চেয়ার টেবিল খালি ছিল। অথচ কর্তৃপক্ষ এখন বলছে সেখানে আসন স্বল্পতার কারণে তাদের বের করে দেওয়া হয়েছিল।

চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের উর্থ ক্যাফে রেস্টুরেন্টটিতে মুসলিমবিদ্বেষী অনেক ঘটনাই ঘটেছে। মার্চ ও এপ্রিলের দিকে স্থানীয়রা মুসলমান ভোক্তাদের প্রতি এতটাই বিরক্তি দেখায় যে, তারা ডিম নিক্ষেপ করেছিল।

মুসলমান ক্রেতাদের বের করে দেওয়ার ঘটনার পর উর্থ ক্যাফে নিন্দা প্রকাশ করেনি, বরং উল্টো হামলাকারীদের পক্ষে সাফাই গেয়েছেন।

এক ফেসবুক পোস্টে রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ লিখেছে, ‘উর্থ ক্যাফে সারা ফার্সাকের ওপর ধর্মীয় বিষোদগারের অভিযোগ অস্বীকার করছে। তদন্ত এখনও চলছে। দেখে মনে হচ্ছে ফার্সাক এবং তার বান্ধবীরা সেই সময় নিয়ম ভেঙ্গেছিল।






মন্তব্য চালু নেই