মেইন ম্যেনু

হিজড়াদের বিয়ে বৈধতা পেল পাকিস্তানে

পাকিস্তানে নতুন ফতোয়া জারি হয়েছে। শুনে অবাক হবেন হয়তো। দেশের শীর্ষ ৫০ আলেম হিজরাদের বিয়ে বৈধ বলে ঘোষণা করেছেন। সোমবার দেশটির স্থানীয় গণমাধ্যমে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়। খবর ডনের।

রোববার ওই নতুন ফতোয়া জারি করা হয়। তানজিম ইতিহাদ-ই-উম্মাতের একদল বিজ্ঞ আলেম ওই ফতোয়া জারি করেন। তারা জানান, হিজরারাও এখন বিয়ে করতে পারবেন।

তবে ফতোয়ায় বলা হয়েছে, যেসব হিজরার মধ্যে পুরুষসুলভ বৈশিষ্ট্য বেশি সে যে কোনো নারী বা অন্য কোনো হিজরাকে বিয়ে করতে পারবে। ঠিক একই রকম কোনো হিজরার মধ্যে নারীসুলভ বৈশিষ্ট্য বেশি থাকলে তারা নিজেদের পছন্দমত বিয়ে করতে পারবে।

তবে যাদের মধ্যে নারী এবং পুরুষ উভয় ধরনের বৈশিষ্ট্যই রয়েছে, তারা কাউকে বিয়ে করতে পারবে না।

আলেমরা জানিয়েছেন, আগে সম্পত্তি থেকে হিজরাদের বঞ্চিত করা হতো। এটা একেবারেই অবৈধ। আর অনেক বাবা-মা মনে করেন আল্লাহ রাগ করে তাদের হিজরা সন্তান দান করেছেন। কিন্তু এটা ঠিক নয়। আল্লাহই ভালো জানেন আমাদের জন্য কোনটা ঠিক।

এ ধরনের বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে সরকারের কঠোর পদক্ষেপ নেয়া উচিত বলে মনে করেন আলেমরা।

সমাজে হিজরাদের প্রতি যে বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয় তা থেকে সবাইকে বিরত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। হিজরাদের অপমান করা বা তাদের আজেবাজে কথা বলাকে ‘হারাম’ বলেও উল্লেখ করেন আলেমরা।

ওই ফতোয়ায় আরো বলা হয়, একজন হিজরা মারা গেলে অন্য সব মুসলমান নারী-পুরুষের মতই তাকে দাফন করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই