মেইন ম্যেনু

হিন্দু মেয়েদের বিয়ে করলে মুসলিম ছেলেরা অনেক টাকা পায় : সাধ্বী প্রাচি

ভারতের বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেত্রী সাধ্বী প্রাচি ‘মুসলিম মুক্ত ভারত’ গড়ার ডাক দেয়ার প্রতবাদে তার বিরুদ্ধে পাঞ্জাব এবং কেরালায় পৃথকভাবে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে কিছুদিন আগে। সাধ্বীর কাথায় ভারত একমাত্র হিন্দুদের দেশ, তাই এদেশে কোনো মুসলিম বসবাস করতে পারবে না। তবে এবর তিনি বিতর্কের মাঝে আরেকটি মাত্রা যোগ করলেন। তিনি বলেন, মুসলিম ছেলেরা হিন্দু মেয়েদের বিয়ে করলে টাকা পায়।

‘লাভ জিহাদের চক্রান্ত আরব দেশগুলো থেকে করা হয়েছে। হিন্দু মেয়েদের বিয়ে করা মুসলিম যুবকদের আরব দেশ থেকে অর্থ দিয়ে সম্মানিত করা হয়।’ বিতর্কিত এ মন্তব্য করেছেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেত্রী সাধ্বী প্রাচি।

তিনি আরো বলেছেন, মুসলিম ছেলেরা সুদৃশ্য মোটর বাইক নিয়ে মেয়েদের কলেজের বাইরে দাঁড়িয়ে থাকে এবং নিজেদের হিন্দু নামে পরিচয় দিয়ে মেয়েদের ফাঁদে ফেলে থাকে। প্যারিস টুডের এক প্রতিবেদনে এ খবর জানা যায়।

সাধ্বী প্রাচির দাবি, ‘ওরা আমাদের মেয়েদের বিয়ে করবে। কারণ, এসব আরব দেশগুলোর ‘লাভ জিহাদ’ চক্রান্ত। ওরা ব্রাহ্মণ মেয়েকে বিয়ে করলে ৭ লাখ, বৈশ্য মেয়ের জন্য ৫ লাখ, ঠাকুর মেয়েদের জন্য ৩ লাখ এবং শূদ্র মেয়েদের ২ লাখ টাকা করে দেয়।’

তিনি হিন্দু পরিবারের কাছে মেয়ে এবং বউকে অন্য সম্প্রদায়ের হাত থেকে রক্ষা করার আহ্বান জানান।

এর আগে ‘মুসলিমমুক্ত ভারত’ গড়ার ডাক দিয়েছেন সাধ্বী প্রাচি। এ নিয়ে বিভিন্ন মহলে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তার বিরুদ্ধে এরইমধ্যে পাঞ্জাব এবং কেরালায় এফআইআর দায়ের হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে জম্মু-কাশ্মির বিধানসভাতেও গত বুধ এবং বৃহস্পতিবার দুই দিন ধরে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। সেই বিতর্ক শেষ না হতেই এবার কথিত ‘লাভ জিহাদ’ নিয়ে মন্তব্য করে নয়া বিতর্ক সৃষ্টি করলেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেত্রী সাধ্বী প্রাচি।

সাধ্বী প্রাচিকে কটাক্ষ করে গত মার্চে উত্তর প্রদেশের প্রভাবশালী মন্ত্রী আজম খান মন্তব্য করেন, “আমি তো ওকে ভালোবাসি কিন্তু একে না আবার ‘লাভ জিহাদ’ নাম না দেয়া হয়! আমি তো এও বলি যত কুমার-কুমারী (অবিবাহিত পুরুষ এবং নারী) আছে তাদের বিয়ে দেয়া হলে তবেই এদের হতাশা দূর হবে।”

এতে অবশ্য বেজায় চটেছিলেন বিজেপি’র মহাসচিব কৈলাস বিজয়বর্গিয়। তিনি আজম খানকে বিকৃত মস্তিষ্ক বলে অভিহিত করেন।

হিন্দুত্ববাদীরা কথিত ‘লাভ জিহাদ’ নিয়ে বিভিন্ন সময়ে প্রচারণা চালালেও বিজেপি’র দুই মুসলিম নেতা মুখতার আব্বাস নাকভি এবং শাহনওয়াজ হুসেন দু জনের স্ত্রীই হিন্দু। তাহলে তাদেরও লাভ-জিহাদি বলা হবে কীনা নিন্দুকেরা প্রশ্ন তুলেছেন।






মন্তব্য চালু নেই