মেইন ম্যেনু

হৃদপিণ্ডের অসুস্থতার যে লক্ষণগুলো প্রতিদিন অবহেলা করছেন আপনি!

আমাদের মূল সমস্যা হচ্ছে যতক্ষণ পর্যন্ত খুব বেশী সমস্যা না হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা আমাদের শারীরিক সমস্যাগুলোর দিকে একেবারেই নজর দিই না। আবার অনেকে কিছু মারাত্মক সমস্যার লক্ষণকে সাধারণ জীবনযাপন সংক্রান্ত সমস্যা, খাওয়া দাওয়ার সমস্যা ইত্যাদি ভেবে অবহেলা করে চুপ করে থাকেন। এতে দেহের ভেতরের রোগটি মারাত্মক পর্যায়ে চলে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে যায়। প্রতিবছর হার্টের সমস্যায় ভুগে মৃত্যুবরণ করেন অসংখ্য মানুষ। আর এর বেশীরভাগই হয়ে থাকে লক্ষণ অবহেলার কারণে রোগের আকার মারাত্মক হয়ে যাওয়ার কারণে। নিজে থেকে সতর্ক হতে হবে সবাইকে। প্রতিদিন হার্টের সমস্যার যে লক্ষণগুলো সাধারণ ভেবে অবহেলা করছেন তা বন্ধ করুন আজ থেকেই।

১) ছোট ছোট শ্বাস নেয়া
যদি আপনার অ্যাজমা বা দীর্ঘমেয়াদি অবস্ট্রাক্টিভ পালমনারি ডিজিজ ধরণের সমস্যা না ভুগেই ছোট ছোট শ্বাস নেয়ার ঘটনা হতে থাকে তাহলে এটি আপনার হৃদপিণ্ড জনিত সমস্যার লক্ষণ প্রকাশ করছে।

২) অসুস্থবোধ করা
পেটে ব্যথা, হজমে সমস্যা, বমিভাব ও বমি হওয়া এবং অস্বস্তি লাগার সমস্যাকে অনেকেই খাদ্য সংক্রান্ত সমস্যা মনে করে থাকেন। কিন্তু এগুলো হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ।

৩) চাপ অনুভব করা
যদি বুকে এবং বুকের চারপাশে চাপ ও আড়ষ্টতা অনুভূত হতে থাকে এবং আটকে যাওয়ার মতো অনুভূতি হতে থাকে তাহলে বুঝে নেবেন এটি আপনার হার্টের সমস্যার কারণে হচ্ছে।

৪) বুকে ব্যথা
সকল ধরণের বুকে ব্যথাই হৃদপিণ্ডের সমস্যা প্রকাশ করে না। ব্রেস্টবোনের উপর, একটু বাম কেন্দ্রিক ব্যথাগুলোই প্রধানত হার্টের সমস্যার লক্ষণ। আর ব্যথা এমনভাবে অনুভূত হতে থাকে যেন বুকের উপর অনেক ভারী কিছু চেপে বসে আছে।

৫) অতিরিক্ত অস্থিরতা
মাথা ঘোরানো, ঝাপসা দেখা, বুকে ব্যথা ইত্যাদি অস্বস্তির পাশাপাশি যদি অতিরিক্ত অস্থিরতা দেখতে পান নিজের মধ্যে তাহলে অবহেলা করবেন না। কারণ এই লক্ষণগুলো হার্টের সমস্যা প্রকাশ করে।

৬) হৃদস্পন্দন বেড়ে যাওয়া
কোনো পরিশ্রম ছাড়াই দুর্বলতা অনুভব, মাথা ঘোরানোর পাশাপাশি যদি হৃদ স্পন্দন বেড়ে যেতে থাকে এবং বুক ধড়ফড় করতে থাকে তাহলে জেনে রাখুন এগুলো, হার্ট ফেইলিওর, হার্ট অ্যাটাক অথবা অ্যারিদমিয়া সমস্যার লক্ষণ।

৭) ঠাণ্ডা ঘাম হওয়া
হুট করে ঘেমে যাওয়া বা অনেক ঘেমে যাওয়ার সমস্যা অনেকেরই রয়েছে, কিন্তু ঠাণ্ডা ঘাম হওয়ার সমস্যাকে মিলিয়ে ফেললে চলবে না। কারন ঠাণ্ডা ঘাম হওয়া হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ।

সূত্র ও ছবি stethnews.com



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই