মেইন ম্যেনু

হৃদরোগের সমস্যায় যে ৫ টি স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া যায় না

টিনজাত সবজি, প্যাকেটের জুস, কার্বোনেটেড বেভারেজ, ভাজা খাবার বা চিপস খাওয়া হৃদপিন্ডের জন্য অস্বাস্থ্যকর এটা আমরা সবাই জানি। কিছু খাবার আছে হৃদপিন্ডের জন্য স্বাস্থ্যকর, কিন্তু হৃদরোগ ছাড়াও যদি আপনার অন্তর্নিহিত কোন স্বাস্থ্য সমস্যা থাকে তখন এই খাবারগুলো খাওয়া ঠিক নয়। মুম্বাই এর এশিয়ান হার্ট ইন্সটিটিউটের প্রিভেন্টিভ কার্ডিওলজি এন্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের সিনিওর ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজিস্ট ডা. নিলেশ গৌতম এই রকম কিছু খাবারের কথাই জানিয়েছেন। চলুন তাহলে জেনে নিই সেই খাবারগুলোর কথা।

১। কিশমিশ এবং পেস্তা বাদাম

আমরা সবাই জানি যে, বাদাম হার্টের জন্য ভালো কিন্তু সব বাদাম নয়। আখরোট ও কাজুবাদাম ছাড়া অন্য বাদাম এবং শুকনো ফল যেমন – পেস্তা বাদাম ও কিশমিশ এ উচ্চমাত্রার ক্যালরি থাকে। আপনি যদি স্থূল হন এবং হৃদরোগের সাথে যুদ্ধ করতে হয় আপনাকে তাহলে এই বাদাম খাওয়া এড়িয়ে চলুন।

২। ডিম

সন্দেহাতীত ভাবেই বলা যায় যে ডিম প্রোটিনের সমৃদ্ধ উৎস এবং একটি স্বাস্থ্যকর নাশতা। কিন্তু যদি আপনার হৃদরোগ থাকে এবং সেই সাথে উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরলের সমস্যাও থাকে তাহলে ডিম বাদ দেয়াই হবে বুদ্ধিমাণের কাজ, বিশেষ করে ডিমের কুসুম। ডিমের কুসুমে অত্যাবশ্যকীয় ভিটামিন ও মিনারেল থাকার পাশাপাশি কোলেস্টেরলেও পরিপূর্ণ থাকে।

৩। ডাল ও লাল মাংস

ডাল ও লাল মাংসে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে বলে এগুলো স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী এমনকি হার্টের জন্য ও ভালো। কিন্তু যদি গেঁটেবাতের সমস্যায় না ভোগেন তাহলে। প্রোটিনের বাই প্রোডাক্ট হিসেবে ইউরিক এসিড উৎপন্ন হয় যা জয়েন্টে জমা হয়ে এই সমস্যাকে আরো তীব্র করে এবং হার্টের সমস্যা মোকাবেলা করাও কঠিন হয়ে পড়ে।

৪। নারিকেলের তৈরি জিনিস, কলা ও পেঁপে

বলার অপেক্ষা রাখেনা যে, ডায়াবেটিসের সাথে যদি আপনার হার্টের সমস্যাও থাকে তাহলে খাদ্যের বিষয়ে আপনাকে অতিরিক্ত সচেতন হতে হয়। সুতরাং যদি আপনার ডায়াবেটিস ও হৃদরোগ উভয় সমস্যাই থাকে তাহলে আপনাকে পটাসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। পটাসিয়াম হৃদস্পন্দনে বাঁধা দেয় এবং ঝুঁকি বৃদ্ধি করে।

৫। মাখন এবং ঘি

ঘি, মাখন, পনির এবং তেল হার্টের রোগীদের জন্য কঠোর ভাবেই নিষেধ করা হয়। আপনার যদি ডায়াবেটিস এবং স্থূলতার সমস্যাও থাকে তাহলে এগুলো গ্রহণ করলে স্বাস্থ্য ঝুঁকি বৃদ্ধি পায় আরো বেশি।






মন্তব্য চালু নেই