মেইন ম্যেনু

হৃদরোগ নিরাময় করতে পারে সূর্যের আলো

কিছু সময় সকালের রোদ গায়ে মাখনোর অভ্যাস আমাদের অনেকেরই আছে। মায়েরা তাদের ছোট ছেলেমেয়েদেরও কিছু সময়ের জন্য সকালের রোদের সংস্পর্শে রাখেন। এতে আমাদের দেহে প্রবেশ করে ভিটামিন ডি। এর ফলে ভালো থাকে ত্বক, মজবুত হয় হাড় ও দাঁত। শুধু তাই নয় দেহের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতেও সাহায্য করে ভিটামিন ডি।

তবে এবার ভিটামিন ডি’র আরো একটি উপকারী দিক খুঁজে পেয়েছেন গবেষকরা। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, হৃদরোগ নিরাময়েও সাহায্য করে এই ভিটামিনটি। ১৬৩ জন হৃদরোগীর ওপর পরীক্ষা চালিয়ে নতুন এ তথ্য পেয়েছেন ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশনের বিজ্ঞানীরা।

পরীক্ষায় দেখা যায়, সূর্যের আলো ত্বকের মধ্য দিয়ে শরীরে প্রবেশের সময় যে ভিটামিন ডি তৈরি হয় তা হৃদপিণ্ডের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এর ফলে সারা গায়ে রক্ত চলাচল বেড়ে যায়। যুক্তরাষ্ট্রের হৃদরোগ গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘আমেরিকান কলেজ অব কার্ডিওলজি’র একটি সম্মেলনে গবেষণা পত্রটি উপস্থাপন করেছে যুক্তরাজ্যের দ্য লিডস টিচিং হসপিটালের একটি দল। ভিটামিন ডি’র এই কার্যক্ষমতাকে ‘অত্যন্ত আশ্চর্যজনক’ বলে মন্তব্য করেছে গবেষণা দলটি।

ভিটামিন ডি সাধারণত মজবুত হাড় ও দাঁতের গঠনে দরকার হয়। এমনকি সারা দেহেও রয়েছে এই ভিটামিনটির প্রয়োজনীয়তা। তবে অনেক লোকই এর অভাবে ভুগে থাকে। ভিটামিন ডি’র প্রধান উৎস সূর্যের আলো। মূলত সূর্যের আলো যখন আমাদের ত্বকের ভেতর দিয়ে শরীরের মধ্যে প্রবেশ করে তখন তা ভিটামিন ডি’এ রূপান্তরিত হয়।

যাদের ওপর গবেষণাটি পরিচালনা করা হয়েছে তাদের গড় বয়স ৭০ এবং অন্য অনেকের মতো এদেরও ভিটামিন ডি’র অভাব রয়েছে, বিশেষ করে গ্রীষ্মের সময়। এ বিষয়ে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ড. ক্লাউস উইটি বলেন, ‘তারা ঘরের বাইরে কম সময় কাটায়। অথচ বয়সের সাথে সাথে তাদের ত্বকের ভিটামিন ডি উৎপাদনক্ষমতা কমে যায়। তবে এর কারণ আমরা এখনো জানি না।’

গবেষণায় অংশ নেয়া প্রত্যেক রোগীকে এক বছর ধরে দৈনিক একটি করে ১০০ মাইক্রোগ্রামের ভিটামিন ডি ট্যাবলেট অথবা একটি করে সুগার পিল প্লাসিবো দেয়া হয়েছে। এতে দেখা যায়, স্বাস্থ্যবানদের ক্ষেত্রে রক্ত চলাচল ৬০ থেকে ৭০ ভাগ পর্যন্ত স্বাভাবিক থাকে। আর যাদের আগে থেকেই হৃদরোগের সমস্যা আছে তাদের ক্ষেত্রে এটা কাজ করে চারভাগের একভাগ।

যুক্তরাজ্যে ৬৫ বছরের বেশি বয়স্কদের দৈনিক ১০ মাইক্রোগ্রাম করে ভিটামিন ডি গ্রহণের জন্য বলা হয়। তবে নিয়মিত উচ্চ মাত্রার ভিটামিন ডি গ্রহণে পরামর্শ দেন না ড. উইটি।

উল্লেখ্য, ভিটামিন ডি’র প্রধান উৎস সূর্যের আলো হলেও তৈলাক্ত মাছ, ডিম এমন বিভিন্ন ধরনের সবজি থেকে ও ভিটামিনটি পাওয়া যায়। তবে ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশনের অধ্যাপক পিটার ওয়েইসবার্গ সতর্ক করে দিয়ে জানান, হৃদরোগের ক্ষেত্রে ব্যায়াম ভালো কোনো ফল দিতে পারে না। এ বিষয়ে আরো ব্যাপক গবেষণা দরকার বলেও মনে করেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই