মেইন ম্যেনু

হেডফোনে আমরা গান তুলনামূলকভাবে ভালো শুনতে পাই কেন?

গান আর সুর মানুষকে সবসময়েই প্রশান্তি দিয়েছে। করে তুলেছে শুদ্ধ। তবে আনন্দদায়ক আর উপভোগ্য এসব গান যেন আরেকটু বেশিই কাছে টানে যখন কিনা সেটা হেডফোনে শোনা হয়। কিন্তু কেন? কেন হেডফোনে আমাদের চিরচেনা গানগুলোকে আরো একটু ভালোভাবে, আরো একটু বেশি আকর্ষণীয়ভাবে শুনতে পাই আমরা? সত্যিই কি ভালো শুনতে পাই? চলুন জেনে আসি।

হেডফোনের সুর আর গানগুলো কি স্বাভাবিক সময়ের চাইতে বেশি আকর্ষণীয় ও ভালো মানের হয়ে থাকে?

একদম না। অনেকে মনে করেন যে, হেডফোনের মাধ্যমে গান শুনলে সেটা আমাদের স্বাভাবিক সময়ে শুনতে পাওয়া গান বা সুরের চাইতে ভালো শোনায়। কিন্তু বাস্তবে এর কৃতিত্ব কিন্তু হেডফোনের নয়, বরং আপনার কান আর মস্তিষ্কের। বিশেষজ্ঞদের মতে, আমাদের কানের সাথে লেগে থাকা হেডফোনের দ্বারা যে গান বা সুর আমরা শুনতে পাই সেটা বেশ উচ্চস্বরের হয়। সেইসাথে সেই সুর বা গানের বাইরে যাওয়ার পথও আটকে থাকে। ফলে সেটা সরাসরি আমাদের কানের ভেতরে গিয়ে আঘাত করে। আমাদের বাম কান ডান কানের চাইতে কয়েক সেকেন্ড পর শব্দ শোনে। আর তাই হেডফোনে তৈরি করা বিশেষ প্রক্রিয়ায় আমাদের মস্তিষ্কের এই বিষয়টিকে গুরুত্ব দেওয়া হয় আর এমনটা ব্যবস্থা করা হয় যাতে করে দুই কানেই ঠিকঠাকভাবে শব্দ শুনতে পারি আমরা। তবে ভিন্ন ভিন্ন মানুষের মস্তিষ্ক এই ক্ষেত্রে ভিন্ন ভিন্ন প্রতিক্রিয়া দেখায়।

পরিবেশের প্রভাব

আপনি হোডফোন ছাড়া কোন গান শুনতে গেলে সেটা বেশকিছু সমস্যার সম্মুখীন হয় পরিবেশের কাছ থেকে। হেডফোন না থাকায় গানের সুর আর শব্দগুলো সোজাভাবে কেবল আপনার কানে সরাসরি প্রবেশ করতে পারেনা। আপনার কানে প্রবেশ করার আগেই তরঙ্গগুলো ধাক্কা খায় দেয়াল আর চারপাশের বিভিন্ন জিনিসে। ফলে একটু হলেও বিভাজিত সুর শুনি আমরা। এছাড়া প্রকৃতিতে কেবল একটি শব্দই থাকেনা। সেখানে থাকে নানারকম শব্দের মিশ্রণ। ফলে আপনার সম্পূর্ণ মনোযোগ ঐ গানটি শোনাকে কেন্দ্র করে হলেও বাস্তবে আপনার মনোযোগও যথেষ্ট ব্যাহত হয় স্বাভাবিক শ্রবণ প্রক্রিয়ায়। একই সাথে মনোযোগ কয়েকটি শব্দ শোনার দিকে চলে যাওয়ার ফলে ঠিকঠাকভাবে সঠিক গান বা সুরটি কানে আসে না আমাদের। কিন্তু হেডফোন ব্যবহার করলে এই সমস্যাগুলোর মুখোমুখি হতে হয়না আমাদের।

আর তাই, হেডফোনকে যেকোন গান বা সুর শোনার ক্ষেত্রে আমাদের সাহায্যকারী বলা যেতে পারে। তবে তাই বলে এটা বলা যায় না যে, এটি ব্যবহারে আমাদের কাছে স্বাভাবিক গানগুলোকে আরেকটু বেশি আকর্ষণীয় মনে হলেও হেডফোনই তার একমাত্র কারণ।






মন্তব্য চালু নেই