মেইন ম্যেনু

১ম দফা ভোটের পরই পশ্চিমবঙ্গে সংঘর্ষ!

মাওবাদী অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ শেষ হলেও ভোটের পরপরই রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো এ খবর জানিয়েছে। পশ্চিম মেদেনীপুরের গড়বেড়া, শালবানি এবং শুনকাতোড় এলাকায় ভোটের দিন রাতেই বিরোধী জোট সিপিআইএম এবং কংগ্রেসের সমর্থকদের ওপর হামলা চালানো হয়। অভিযোগের তীর অবশ্য শাসক দলের দিকেই। বিভিন্ন সংঘর্ষে আহতরা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদের মধ্যে চার জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে হাসপাতাল সূত্র।

স্থানীয় সিপিএম নেতা অমিয় পাত্র জানান, যে হারে ভোট পড়েছে তাতে শাসক দল আতঙ্কিত। ওরা জঙ্গলমহলে হার নিশ্চিত জেনে গিয়েই এই হামলার পথ বেছে নিয়েছে। তবে তৃণমূল কংগ্রেস এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

এদিকে ভোটের প্রচারণা করতে গিয়ে বিরোধী দলের সমর্থকরা হামলার শিকার হচ্ছেন বলেও অভিযোগ উঠছে শাসক তৃণমূলের বিরুদ্ধে। বীরভূমের লাভপুরের বামফ্রন্ট-কংগ্রেসের প্রচারণার সময় তাদের ওপর হামলা চালায় একদল দুস্কৃতী। ওই ঘটনাতেও বেশ কয়েকজন বিরোধী সমর্থক আহত হয়েছেন।

তৃণমূলের এই আক্রমণের প্রতিবাদে কলকাতার নির্বাচন কমিশন দফতরে বামফ্রন্ট মঙ্গলবার অবস্থান ধর্মঘট করবে বলে জানা গেছে। কংগ্রেসের তরফেও কমিশনের কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

সোমবার পশ্চিমবঙ্গের মাওবাদী অধুষ্যিত বাঁকুড়া, পুরুলিয়া এবং পশ্চিমমেদেনীপুর জেলার ১৮ টি বিধানসভা আসনে প্রথম দফার শান্তিপূর্ণভাবে ভোট নেওয়া হয়। যদিও কেন্দ্রীয় বাহিনীর অতিনিস্কৃয় থাকার অভিযোগ তুলেছে রাজনৈতিক দলগুলো। বিশেষ করে আধা-সামারিক বাহিনীর সামনে বেশ কিছু বুথে ঢুকে তৃণমূল কংগ্রেস ইভিএম মেশিনে ইচ্ছে মতো ভোট দেওয়ার ঘটনায় কার্যতই বড়সড় প্রশ্নের মুখে ভারতের নির্বাচন কমিশন এবং কেন্দ্রীয় বাহিনী।






মন্তব্য চালু নেই