মেইন ম্যেনু

১০-১৫ ফুট উঁচু ঢেউ আঘাত হানছে উপকূলে

ঘুর্ণিঝড় রোয়ানু চট্টগ্রাম-কক্সবাজার উপকূলে আঘাত হেনেছে। বেলা পৌঁনে ১২টার দিকে সামুদ্রিক এ ঝড়ের অগ্রবর্তি অংশ কক্সবাজার-চট্টগ্রাম উপকূলে আঘাত হানতে শুরু করে। ঘন্টায় প্রায় ৮০ থেকে ৮৮ কিলোমিটার বেগে ঝড়টির শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করছে।

আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, ঝড়টি কক্সবাজার-চট্টগ্রাম উপকূল দিয়ে স্থল নিম্নচাপে পরিণত হয়ে সিতাকুণ্ডু হয়ে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের দিকে এগোচ্ছে। বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রমের সময় ভারি বৃষ্টিপাত হচ্ছে। তাৎক্ষণিকভাবে ঝড়ে প্রাণহানির কোন সংবাদ পাওয়া যায়নি। তবে প্রবল বাতাসে কাঁচা ঘরবাড়িসহ সম্পদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

ঝড়ে কক্সবাজারের ৮ উপজেলার নিম্নাঞ্চল ৫ ফুট জোয়ারে তলিয়ে গেছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ জানিয়েছে, এ পর্যন্ত তাদের কাছে দুই শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হওয়ার খবর রয়েছে।

এদিকে নোয়াখালির হাতিয়ায় বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে অনেক গ্রাম তলিয়েছে। প্রাণহানির কোন খবর পাওয়া যায়নি। তলিয়ে গেছে নোয়াখালির নিঝুম দ্বীপ।

এদিকে ঘুর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’র প্রভাবে শুক্রবার রাত থেকে জেলায় ভারি বর্ষণ ও ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাচ্ছে। ঝড়ো বাতাস ও বৃষ্টিতে দেশের বিভিন্ন স্থানে অন্তত শতাধিক কাঁচা-পাকা বাড়ি ঘর বিধ্বস্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।






মন্তব্য চালু নেই