মেইন ম্যেনু

১২০ জনের মুখের বারোটা বাজিয়ে দন্তচিকিৎসক এখন জেলে

ভয়ংকর এক দন্তচিকিৎসকের আট বছরের জেল এবং ১০ হাজার ৯০০ মার্কিন ডলার জরিমানা হয়েছে। তার কাছে চিকিৎসা নিতে আসা ১২০ রোগীর মুখের বারোটা বাজিয়ে তাদের জীবন সংকটাপন্ন করে তোলায় এ দণ্ড দেওয়া হয়েছে তাকে।

ভয়ংকর এ চিকিৎসককে ফ্রান্সে বলা হচ্ছে ‘ডেনটিস্ট অব হরর’। ভয়ানক এ চিকিৎসক নেদারল্যান্ডসের নাগরিক। ফ্রান্সে চাটু-চিননে তিনি প্র্যাকটিস করতেন।

ফ্রান্সে এ মামলার সরকারি আইনজীবী জানিয়েছেন, দন্তচিকিৎসক জ্যাকোবাস ভ্যান নিরোপ মুখের সমস্যা নিয়ে তার কাছে আসা রোগীদের মুখের ভেতরে এলোপাতাড়ি খুঁচিয়ে মজা নিতেন।

একের পর এক রোগী যখন তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দিতে শুরু করলেন, তখন তিনি কানাডা পালিয়ে যান। কানাডা থেকে ফ্রান্সে না ফিরতে তিনি সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়েছেন। কিন্তু অবশেষে তাকে ফ্রান্সে এসে আদালতের মুখোমুখি হতে হয়েছে।

ফ্রান্সের নেভার্সের একটি আদালতে ডেনটিস্ট অব হররের বিরুদ্ধে শুনানি হয়েছে। শুনানিতে অংশ নিয়ে ভুক্তভোগী রোগীরা জানান, তার কাছে মুখের চিকিৎসা নেওয়ার পর তাদের কারো কারো চোয়াল ভেঙে গেছে, দাঁত উপড়ে ফেলতে হয়েছে, কারো মুখের মধ্যে ফোড়া উঠেছে আবার কারো বা মুখের ক্ষত থেকে রক্তে বিষক্রিয়া হয়েছে।

সরকারি আইনজীবী লুসি জাইলুন-ব্রু জানিয়েছেন, অকারণে রোগীদের কষ্ট দিয়েছেন ভ্যান নিরোপ। তাদের মুখে ক্ষত তৈরি করেছেন।

কেন ভ্যান নিরোপ রোগীদের মুখের বারোটা বাজিয়েছেন, এ সম্পর্কে আইনজীবী জাইলুন-ব্রু জানিয়েছেন, রোগীদের মেডিক্যাল ইনস্যুরেন্স থেকে সুবিধা নিতে চেয়েছিলেন তিনি। তা ছাড়া রোগীদের যন্ত্রণা দিয়ে তিনি আনন্দ পেতেন।






মন্তব্য চালু নেই