মেইন ম্যেনু

১৩ জঙ্গিকে হত্যা কেন : খন্দকার মাহবুব

১৩ জঙ্গিকে কেন হত্যা করা হলো—এমন প্রশ্ন রেখে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, ‘তারা কি এতই শক্তিশালী ছিল যে তাদের জীবিত ধরা গেল না? সরকার নাটক সৃষ্টি করছে। তারা জনগণকে ধোকা দিচ্ছে। জনগণকে বোঝাতে চাচ্ছে তারা জঙ্গি নির্মূল করছে।’

জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে রোববার দুপুরে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ সব নেতাকর্মীর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে আয়োজিত এক নাগরিক সমাবেশে এ সব কথা বলেন তিনি। অল কমিউনিটি ফোরাম এ নাগরিক সমাবেশের আয়োজন করে।

খন্দকার মাহবুব বলেন, ‘বিনাবিচারে মানুষ হত্যা করা মানবতাবিরোধী অপরাধ। বিনাবিচারে হত্যার জন্য একদিন আন্তর্জাতিক আদালতে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হতে পারে।’

অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘সরকার বিএনপি চেয়ারপারসন বেগন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা নিয়ে ভয়াবহ পরিণতির দিকে যাচ্ছে। খালেদা জিয়াকে সাজা দিলে তখন কী ধরনের আন্দোলন শুরু হবে সে বিষয়ে সরকার বোধগম্য নয়।’

বর্তমান সরকার বাংলাদেশকে কোথায় নিয়ে গেছে তা নিজেও জানে না বলে মন্তব্য করেন মাহবুব। তিনি বলেন, ‘দেশের সমস্ত প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে দিয়েছে সরকার।’

তিনি বলেন, ‘সরকার সারাজীবন ক্ষমতায় থাকার জন্য সর্বশেষ বিচার বিভাগের ওপর থাবা দিয়েছিল। এখন মিথ্যা মামলায় মিথ্যা সাক্ষী দিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের সাজা দিচ্ছে।’

‘দেশের বিচার বিভাগ ও আইনের শাসন ভুলণ্ঠিত হলে দেশে কিছুই থাকবে না, সবকিছু শেষ হয়ে যাবে’ বলেন মাহবুব।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মো. আশরাফ উদ্দিন বকুলের সভাপতিত্বে নাগরিক সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন—বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নাল আবেদিন ফারুখ, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই