মেইন ম্যেনু

১৩ মাসে ৩ ছেলেকে খুন করেছেন মা

এ যেন হলিউডের লোমহর্ষক হরর মুভিকেও হার মানায়। এক মা একে একে তার তিন শিশু পুত্রকে হত্যা করেছেন পরিকল্পিতভাবে। গত ১৩ মাসে বিভিন্ন সময়ে পাশবিক ঘটনাগুলো ঘটানোর পর সম্প্রতি পুলিশের হাতে ধরা পড়েছেন ব্রিটানি পিলকিংটন নামের ওই নারী।

ধরা পড়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের ওহিও অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দা ব্রিটানি জানিয়েছেন,তার স্বামী একমাত্র মেয়ের চেয়ে ছেলেদের প্রতি বেশি মনোযোগী হওয়ায় তিনি তাদের হত্যা করেছেন।

মঙ্গলবার। স্থানীয় সময় ভোর তিনটার দিকে ৯১১ জরুরি নাম্বারে ফোন করেন ব্রিটানি। পুলিশকে জানান, তার তিন মাসের শিশুপুত্রের শ্বাস প্রশ্বাস বন্ধ হয়ে গেছে। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ছুটে আসে পুলিশ এবং তদন্ত শুরু করে। কেননা ওই পরিবারে এটিই প্রথম শিশু মৃত্যুর ঘটনা নয়। এর আগেও ব্রিটানির দুই ছেলে রহস্যজনকভাবে মারা গেছে যেগুলোর কোনো কিনারা করতে পারেনি পুলিশ।

ঘটনার শুরু গতবছর জুলাই মাসে। তার স্বামী জোসেফ পিলকিংটন কাজ শেষে বাড়ি ফিরে দেখেন তার তিন মাসের ছেলে নিয়াল আর বেঁচে নেই। কিন্তু তখন তার মৃত্যুর কোনো কারণই খুঁজে পাওয়া যায়নি। এর আট মাস পর ফের একই ঘটনা। গত ৬ এপ্রিল বাড়ি ফিরে জোসেফ দেখেন একইভাবে মরে আছে ৪ বছরের ছেলে গাভিন। এই দুই শিশু মৃত্যুর কারণ উদ্ধারে ব্যর্থ হয় স্থানীয় পুলিশ।

এর মাত্র চার মাস পর গত ১৮ আগস্ট একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি। কিন্তু এবার আর ব্যর্থ হয়নি পুলিশ। তারা ওইসব শিশুদের রহস্যময় মৃত্যুর কারণ খুঁজে পেয়েছে। ফুলের মত ওই তিন শিশু কোনো অজ্ঞাত রোগে মারা যায়নি-তাদের পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে তাদেরই গর্ভধারিনী মা।

পুলিশের কাছে সন্তানদের হত্যার কথা স্বীকার করেছেন ব্রিটানি পিলকিংটন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগও গঠন করেছে পুলিশ। তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, শিশুদের মুখে কম্বল চাপা দিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে তিনি তাদের হত্যা করেছেন। কারণ হিসেবে বলেছেন, তাদের বাবা চার বছরের মেয়েটির চেয়ে তিন ছেলেকে বেশি ভালোবাসায় তিনি তাদের হত্যা করেছেন।






মন্তব্য চালু নেই