মেইন ম্যেনু

‘১৪ দলভুক্ত হতে জাতীয় পার্টিকে বাধ্য করা হয়েছিল’

‘২০০৮ সালের জাতীয় নির্বাচনে জাতীয় পার্টিকে ১৪ দলভুক্ত করার জন্য বাধ্য করা হয়েছিল’ বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী জি এম কাদের।

একই সঙ্গে গেজেট করে জাতীয় পার্টির নেত্রী রওশন এরশাদকে বিরোধীদলীয় নেত্রী হিসেবে ঘোষণা এবং জাতীয় পার্টির শীর্ষ নেতাদের মন্ত্রী হওয়াকে অসাংবিধানিক বলেও আখ্যা দিয়েছেন তিনি।

খুলনার জাতিসংঘ পার্কে শুক্রবার দুপুরে মহানগর জাতীয় পার্টির সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। সম্মেলনে অতিথি বক্তা খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হারুনুর রশিদ জাতীয় পার্টি মহাজোটভুক্ত হলে ‘শক্তিশালী’ হবে বলে মন্তব্য করেন। তার এ মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান অতিথি জি এম কাদের এসব কথা বলেন।

জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান বলেন, ‘সাংবিধানিকভাবে জাতীয় পার্টির নেত্রী রওশন এরশাদকে গেজেট করে বিরোধীদলীয় নেত্রী করা হয়েছে। তারপর সেই দলের নেতাদের মন্ত্রী হওয়ার বিষয়টি সাংবিধানিকভাবে সাংঘর্ষিক। এই বিষয়ের অবসান হতে হবে।’

তিনি দাবি করেন, ‘১৯৯১ সালের নির্বাচনে চরম প্রতিকূল অবস্থায় এককভাবে নির্বাচন করেও জাতীয় পার্টি সফলতা পেয়েছিল।’

জি এম কাদের বলেন, ‘বিএনপির জনসমর্থন আছে, কিন্তু সাংগঠনিক ভিত্তি নাই। তারা রাস্তায় দাঁড়াতে পারে না। তবে জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক ভিত্তি আছে, তারা রাস্তায় দাঁড়াতে পারে। তাই এরশাদের দলকে শক্তিশালী করতে হবে।’

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘কোনো দলের লেজুড়বৃত্তি করলে জাতীয় পার্টি বিলীন হয়ে যাবে। তাই এককভাবে দলকে সংগঠিত করে নির্বাচনে অংশ নিতে হবে।’

সম্মেলনে জি এম কাদের খুলনা জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি হিসেবে আলহাজ আবুল হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তরিকুল ইসলামের নাম ঘোষণা করেন। পরে তিন মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের অনুমোদন নিতে পরামর্শ দেন।






মন্তব্য চালু নেই