মেইন ম্যেনু

১৪ দিনের জেল হেফাজতে তাপস পাল

তৃণমূল সাংসদ তাপস পালকে সিবিআই হেফাজত থেকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতে পাঠাল আদালত। শুক্রবার দ্বিতীয় দফার সিবিআই হেফাজতের মেয়াদ শেষে তাপস পালের জামিনের আবেদন জানান তাঁর আইনজীবী। পাল্টা প্রভাবশালী তত্ত্বে ভর করে তীব্র বিরোধিতা করেন সিবিআইয়ের আইনজীবী।

এদিন তাপস পাল চন্দনের টিপ পরে ছিলেন। তাঁকে বেশ নার্ভাস দেখাচ্ছিল। স্ত্রী সারাক্ষণ হাত জোড় করে বসে ছিল। জামিনের শুনানি শুরু হতেই সিবিআই দাবি করে, তাপস পাল প্রভাবশালী ব্যক্তি। জামিন পেলে প্রমাণ নষ্ট করতে পারেন। তদন্ত ব্যাহত হতে পারে।পাল্টা তাপস পালের আইনজীবী বলেন, সত্যি প্রভাবশালী হলে তাপস পাল আগেই প্রমাণ নষ্ট করতেন।

তিনি মানসিকভাবে অসুস্থ। রাতেও শরীর খারাপ হয়েছিল। তাঁকে জামিন দেওয়া হোক। নাহলে অন্তত হাসপাতালে পাঠানো হোক। সিবিআইয়ের আইনজীবী পাল্টা সওয়াল করেন, মানসিকভাবে অসুস্থ হলে তাপস পাল সাংসদ হিসেবে কাজ করেন কীকরে?

সাংসদের আইনজীবী বলেন, তদন্তে দেখা গিয়েছে ফিল্ম ডিভিশন নেই। ২০১০ সালে রিজাইন করেন।
কিন্তু, সিবিআই পাল্টা যুক্তি দেখান, তারপরও রোজভ্যালির অফিসে গেছেন তাপস। ফ্যামিলির সদস্যরাও সুবিধা নিয়েছে। বেতনের বাইরে টাকা নিয়েছেন। তাঁকে হেফাজতে রাখা প্রয়োজন। সওয়াল জবাব শুনে শেষমেশ তাপস পালকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেয় আদালত।-এবিপি






মন্তব্য চালু নেই