মেইন ম্যেনু

১ মাসের মাথায় ফের সেই ব্রিজ খালে

ভেঙে পড়ার ৩৫ দিনের মাথায় আবারও ভেঙে পড়লো ব্রিজটি। সিমেন্টবোঝাই ট্রাকটি ব্রিজে উঠা মাত্রই ভেঙে খালে পড়ে যায় ট্রাকসহ ব্রিজ। এতে আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি হলেও প্রাণে বেঁচে যায় চালক-হেলপার।

কুলাউড়া-বড়লেখা-বিয়ানীবাজার সড়কের হাতলিঘাট নামক স্থানে নির্মাণাধীন ধলছড়ি ব্রিজের বেইলি সেতুটি বুধবার সকালে ভেঙে পড়ায় কর্তৃপক্ষের ভূমিকা নিয়ে জনসাধারণের মধ্যে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ বলছে, ঠিকাদারের সীমাহীন অনিয়মের কারণেই ব্রিজটি ৩৫ দিনের মাথায় ফের ভেঙে পড়েছে।

এদিকে, ব্রিজটি ভেঙে পড়ায় ওই সড়কে সবরকম যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন কুলাউড়া, জুড়ী, বড়লেখা, বিয়ানীবাজারের প্রায় কয়েক লক্ষাধিক মানুষ।

খবর পেয়ে মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী উৎপল সামন্ত ঘটনাস্থলে আসেন। এ নিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো বেইলি ব্রিজটি ভেঙে পড়লো। এর আগে চলতি বছরের ১০ জুন বেইলি ব্রিজটি ভেঙে প্রায় ১৫ দিন যানচলাচল বন্ধ থাকে।

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, বুধবার বিকেলের দিক থেকে নির্মাণাধীন ধলছড়ি ব্রিজের উপর দিয়ে ছোট যানবাহ কিছুটা চলাচলের ব্যবস্থা করা হলেও বড় যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে পণ্য ও যাত্রীবাহী বাসসহ ছোটো-বড়ো অনেক যানবাহন সেখানে আটকা পড়ে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্র জানিয়েছে, ওই সড়কে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হতে ২ দিন সময় লাগবে।

এলাকাবাসী জানান, বুধবার সকালে ঢাকা থেকে বড়লেখাগামী সিমেন্ট বোঝাই ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ট-১৮-৫২১১) নির্মাণাধীন ধলছড়ি ব্রিজের বিকল্প বেইলি ব্রিজে উঠলে সেতু ভেঙে সিমেন্ট বোঝাই ট্রাক খালে পড়ে যায়।

মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী উৎপল সামন্ত জানান, জনদুর্ভোগ নিরসনে নির্মাণ হওয়া ধলছড়ি ব্রিজটি বৃহস্পতিবারের মধ্যে খুলে দেয়া হবে। এ লক্ষ্যে কাজ চলছে।

কাজে ঠিকাদারের সীমাহীন অনিয়মের কারণেই ব্রিজটি পুনরায় ভেঙে পড়েছে বলে দাবি এ কর্মকর্তার।






মন্তব্য চালু নেই