মেইন ম্যেনু

২০১৮ সালে টাইটানিক ২ এর শুভযাত্রা

টাইটানিক।এই একটা নামের সাথে জড়িয়ে আছে হাজার স্মৃতি,বিষ্ময় ১০৬ বছর আগে প্রথম যাত্রাতেই সলিল সমাধি হয়েছিল তরনীর।সেই থেকেই একে ঘিরে প্রশ্ন, কৌতুহলে অন্ত নেই।আজও মানুষের কাছে এর আবেদন অফুরন্ত।সেই ভয়াবহ যাত্রা নিয়ে বিভিন্ন সময়ে কয়েকটি ছবিও নির্মিত হয়েছে।তার মধ্যে কেট উন্সলেট এবং লিওনার্দো অভিনীত ছবিটি বিশ্ব সেরা।

এবার আর স্মৃতির অতল থেকে খুঁজে বের করতে হবে না টাইটানিককে।১০৬ বছর আগের সেই বিলাসবহুল জাহাজের আদলেই নতুন করে তৈরী হয়েছে টাইটানিক ২।সব ঠিকঠাক থাকলেই ২০১৮ সালেই প্রকাশ পাবে বিলাস তরনী টাইটানিক ২।

অস্ট্রেলিয়ার ধনকুবের ক্লাইভ পামার ও তার সংস্থা ব্লু স্টার লাইনের উদ্যোগ তত্ত্বাবধানেই তৈরি হয়েছে টাৈইটানিক ২।দেখতে হুবুহু ১০১২ সালে টাইটানিকের মত হলেও মাপে সামান্যে পরিবর্তন করা হয়েছে।চওড়াতেও ৪ মিটার বড় করা হয়েছে টাইটানিক ২কে।

টাইটানিক জাহাজের যাত্রীদের সলিল সমাধি হওয়ার আরও একটি কারন ছিল জাহাজে পর্যাপ্ত লাইফবোর্ড না থাকা।এবার তেমন কোন ঝুঁকি নেওয়া হয়নি,পর্যাপ্ত লাইফবোর্ড রাখা হয়েছে।

২৭০ মিটার লম্বা, ৫০ মিটার উঁচু এবং ৪০ হাজার টন টাইটানিক ২ এরেআগের জাহাজের মতোই ফাস্ট, সেকেন্ড ও থার্ড ক্লাস টিকিট পাওয়া যাবে।এই কেবিনে ৮৪০ টি কেবিন থাকবে।২,৪০০ যাত্রী ও ৯০০ ক্রু মেম্বার থাকতে পারবে।এছাড়াও থাকছে সুইমিংপুল, টার্কিশ বাথ ও জিম।






মন্তব্য চালু নেই