মেইন ম্যেনু

২০১৯ সালের নির্বাচন সবাইকে নিয়েই হবে: নাসিম

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহম্মদ নাসিম বলেছেন, ২০১৯ সালে নির্বাচন হবে। আপনি নির্বাচনে আসুন। ওই নির্বাচনে কাউকে বাইরে রাখতে চাই না। ওই নির্বাচনেও জনগণ শেখ হাসিনাকেই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে।

রোববার বিকেলে শিল্পকলা একাডেমীর মহড়া কক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত ১৭ রমজান ইসলামের প্রথম যুদ্ধ “বদরের যুদ্ধ ও জামায়াত-বিএনপির রাজনীতি” শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সম্প্রতি ইফতার পার্টিতে দেয়া বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বক্তব্যের সমালোচনা করে নাসিম বলেন, আপনি এই সমস্ত উদ্ভট আবিস্কার বাদ দেন। কোনো ঘটনাকে পাশ কাটিয়ে আমরা যাচ্ছি না। জামায়াতকে তো আর ছাড়তে পাড়লেন না। কিন্তু জামায়াত আর যুদ্ধাপরাধীদের এদেশে কোনো জায়গা নেই। ইফতারের আগে কি ভাষায় একজন নেত্রী বক্তব্য দেন। ইফতার মুখের সামনের রেখে আমাদের ধর্মে আছে গেবদ করতে হয় না। এ সময় যে তিনি মোনাজাত ধরেন তা হয় কিনা আল্লাহ্ জানেন।

তিনি বলেন, ৯২ দিন আন্দোলন করে যে বোমা বাজি হয়েছে তা বেগম জিয়া আবিস্কার করেছেন পুলিশ করেছে। কতখানি দেওলিয়া হলে এমন কথা বলেন একজন নেত্রী। তিনি কত হতাশ থেকে এ কথা বলছেন! আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর কি কারণে তার এতো আক্রোশ? দক্ষিণ ও পূর্ব এশিয়ার মধ্যে দেশ শান্তিপূর্ন অবস্থানে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের এই প্রবীণ নেতা বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এখন আমরা মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে যাচ্ছি। যা বিশ্ব ব্যাংক বলেছে। কিন্তু বিএনপি দেশ যে এগিয়ে যাচ্ছে তা স্বীকার করতে চায় না। মন্ত্রী বলেন, আমরা খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্ণ হয়েছি। আমরা দারিদ্র দূর করণে এগিয়ে যাচ্ছি। স্বাস্থ্য খাত এগিয়ে যাচ্ছে। গ্রাম-গঞ্জে স্বাস্থ্য সেবা পৌছে দিয়ছি। আজকে সমস্ত দেশের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নতি হয়েছে।

অভিনেতা এটি এম শামসুজ্জামানের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন ইসলামী ঐক্যজোটের সভাপতি মিজবাহুর রহমান চৌধুরী, কবি নাসির আহমেদ, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, সদস্য হেদায়েতুল ইসলাম স্বপন, আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই