মেইন ম্যেনু

২৪০০ বছরের রহস্য, অতঃপর এরিস্টটলের সমাধির সন্ধান!

বিখ্যাত গ্রিক দার্শনিক অ্যারিস্টটলের জন্মস্থান শনাক্ত হয়েছে অনেক আগেই। ১৯৯০ সালে কনস্টানটিনোস সিসমানিদিস নামের একজন প্রত্মতত্ত্ববিদ গ্রিসের উত্তরাঞ্চলে অ্যারিস্টটলের জন্মস্থানটি শনাক্ত করেন। তবে এখন ওই প্রত্মতাত্ত্বিকের দাবি, ওই স্থানটিতেই রয়েছে অ্যারিস্টটল এবং তার ছাত্র আলেকজান্ডার দ্য গ্রেটের সমাধি।

বৃহস্পতিবার অ্যারিস্টটলের ২৪০০ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে সিসমানিদিস বলেন, ‘এখনো সঠিক কোনো প্রমাণ আমাদের হাতে নেই। তবে ধ্বংসাবশেষে নির্ভরযোগ্য নির্দেশনা খুঁজে পাওয়া গেছে। আমরা ধারণা করছি, এখানেই হয়তো রয়েছে দার্শনিক এরিস্টটলের সমাধি।

আমরা পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়ার জন্য অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছি।’ এই স্থানটিকে অ্যারিস্টটলের সমাধি বলে দাবি করা হচ্ছে তিনি আরো বলেন, ‘বন্দরনগরী থেসালনিকি থেকে ৪৩ কিলোমিটার পশ্চিমে স্ট্যাগিরা শহরে ধ্বংসাবশেষ খুঁড়ে ওই নিদর্শনটি পাওয়া গেছে। এখানে অ্যারিস্টটলের মৃত্যুর পর একটি স্মৃতিস্তম্ভ তৈরি করা হয়েছিল, যেখানে মানুষ তাকে শ্রদ্ধা জানাতে আসতো।’

তবে সেখানে কোনো মানবদেহাবশেষের সন্ধান মিলেনি বলেও জানান সিসমানিদিস। উল্লেখ্য, অ্যারিস্টটল খ্রিষ্টপূর্ব ৩৮৪ সালে গ্রিসের স্টাগিরা নগরীতে জন্ম গ্রহণ করেন। জীবনের শুরু থেকেই মেসিডোনিয়ার রাজসভার সঙ্গে সু-সম্পর্ক থাকায় রাজনীতি তার চিন্তা ও মননে ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করে। তিনি সক্রেটিসের যোগ্য উত্তরসূরী প্লেটোর শিষ্য। অ্যারিস্টটল রাষ্ট্রবিজ্ঞানের জনক।






মন্তব্য চালু নেই