মেইন ম্যেনু

২৪৮ রানে অলআউট দক্ষিণ আফ্রিকা

চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিনের শুরুটা বাংলাদেশ না দক্ষিণ আফ্রিকার, তা বলা মুশকিল। প্রথম সেশনে টস জিতে ব্যাট করতে নামা দক্ষিণ আফ্রিকার রান ২৮ ওভারে ১ উইকেটে ১০৪। গড় ৩.৭১।

প্রোটিয়া শিবিরে বাংলাদেশ মাত্র একবার আঘাত করলেও নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ব্যাটসম্যানদের বেশ চাপে রেখেছিলেন। সকালের সেশনটি দুই দল ভাগাভাগি করে নিতে পারে। কিন্তু দিনের অন্য দুই সেশন শুধুই বাংলাদেশের।

স্বাগতিক বোলারদের দাপটে আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকা টালমাটাল। দ্বিতীয় সেশনে ২ উইকেট হারিয়ে সফরকারীরা ২৯ ওভারে তুলে নেয় ৬১ রান। আর তৃতীয় ও শেষ সেশনে প্রোটিয়ারা ৭ উইকেট হারিয়ে ২৬.৪ ওভারে করে মাত্র ৮৩ রান। সব মিলিয়ে ৮৩.৪ ওভারে ২৪৮ রানে প্রথম ইনিংস গুটিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকার।

শেষ দুই সেশনে স্বাগতিক বোলারদের দাপটে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং লাইনআপ চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে যায়। প্রথম সেশনে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ স্টিয়ান ফন জিলকে ফিরিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন। এরপর দ্বিতীয় সেশনে শুরুটা করেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ৪৭ রান করা ডিন এলগারকে উইকেটের পেছনে লিটন দাসকে তালুবন্দি করান তাইজুল। পরের ওভারেই সাকিব আল হাসান ফাফ ডু প্লেসিসকে (৪৮) এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন।

দ্বিতীয় সেশনে টানা ২ উইকেট নিলেও নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেন জুবায়ের হোসেন লিখন, মোহাম্মদ শহীদ ও সাকিবরা। স্বাগতিক বোলারদের পেস ও স্পিন আক্রমণে ৩০ ওভারে মাত্র ৬৫ রান তোলে সফরকারীরা। ১১ ওভার ছিল রানশূন্য।

দিন যত গড়িয়েছে বোলাররা ততই নিজেদের বোলিং কারিশমা দেখিয়েছেন। প্রথম দুই সেশনে ৩ উইকেট তুলে নেওয়া বাংলাদেশ শেষ সেশনে প্রোটিয়াদের ৭ উইকেট তুলে নেয় ২৬.৪ ওভারে। প্রথম দুই সেশনে উইকেটশূন্য থাকা জুবায়ের হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান ৭ উইকেট তুলে নেন। অভিষিক্ত হওয়া পেসার মুস্তাফিজ ৬ ওভারে তুলে নেন ৪ উইকেট।

বিরতির পর প্রথম ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক হাশিম আমলা মুস্তাফিজের বলে গালি ও ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টের গ্যাপ দিয়ে বাউন্ডারি হাঁকান। কিন্তু পরের ওভারে বোলিংয়ে এসেই হাশিম আমলার উইকেট নিয়ে প্রথম টেস্ট উইকেট প্রাপ্তির উদযাপন করেন ১৯ বছর বয়সি মুস্তাফিজ। মুস্তাফিজের বলে উইকেটের পেছনে লিটনকে ক্যাচ দেন ১৩ রান করা আমলা।

ক্রিজে আসা জেপি ডুমিনিকে ওভারের দ্বিতীয় বলেই সাজঘরে। মুস্তাফিজের ইনসুইংঙ্গার ডুমিনির প্যাডে আঘাত করে। আম্পায়ার সাড়া না দেওয়ায় রিভিউ চান বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। তাতে সফল সাতক্ষীরার পেসার। হ্যাটট্রিকের সম্ভবনা তৈরী হয়। কিন্তু প্রোটিয়াদের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি কক কোনোমতে তৃতীয় বলটি ঠেকিয়ে মুস্তাফিজকে হ্যাটট্রিক বঞ্চিত রাখেন। কিন্তু চতুর্থ বলেই মুস্তাফিজ স্বরূপে। ডি কক বুঝে উঠার আগেই মুস্তাফিজ তার উইকেটে আঘাত করেন। চার বলে যা মুস্তাফিজের তিন নম্বর উইকেট।

মুস্তাফিজের পর প্রোটিয়া শিবিরে একের পর এক আঘাত করেন লেগ স্পিনার জুবায়ের হোসেন। ইনিংসের শুরুতে না পারলেও লেজটা গুড়িয়ে দিয়েছেন ২০ বছর বয়সি জুবায়ের। তার ঘূর্ণিতে একে একে সাজঘরে ফেরেন ফিল্যান্ডার (২৪), সিমন হারমার (৯) ও ডেইল স্টেইন (২)।

পুরাতন বলে আলো ছড়ানো মুস্তাফিজ নতুন বল নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার শেষ উইকেট তুলে নিয়ে ৪ উইকেটের স্বাদ নেন। সফরকারীদের টপ স্কোরার তেম্বা বাভুমা ৫৪ রানে মুস্তাফিজের বলে জুবায়ের হোসেনের হাতে ক্যাচ দেন। ১০৮ বলে ৫ বাউন্ডারিতে ৫৪ রান আসে বাভুমার ব্যাট থেকে।

দক্ষিণ আফ্রিকাকে অল্পরানে আটকাতে ছয় বোলার ব্যবহার করেন মুশফিকুর রহিম। পেসার মোহাম্মদ শহীদ ছাড়া সকলেই উইকেট পকেটে পুরেন। কিন্তু সফরকারী ব্যাটসম্যানদের সবচেয়ে বেশি ভুগিয়েছেন শহীদ। ১৭ ওভারে ৯ মেডেনে ৩৪ রান খরচ করেন তিনি। সাকিব, মাহমুদউল্লাহ ও তাইজুল ১টি করে উইকেট নেন।

দিনের খেলা শেষ হওয়ার আগে ১২ মিনিট ব্যাটিং করার সুযোগ পায় বাংলাদেশ। দুই ওভারে ৭ রান তুলে দিন শেষ করেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস। ইমরুল ৫ ও তামিম ১ রান নিয়ে বুধবার দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করবেন।






মন্তব্য চালু নেই