মেইন ম্যেনু

২৮৬৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ৮ প্রকল্পের অনুমোদন

২ হাজার ৮৬৫ কোটি ৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ৮ প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক)।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক বৈঠকে প্রকল্পগুলোর অনুমোদন দেয়া হয়।

বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘আজকের একনেক বৈঠকে ২ হাজার ৮৬৫ কোটি ৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ৫টি নতুন ও ৩টি সংশোধনসহ মোট ৮ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে সরকারি অর্থায়ন ১ হাজার ৫৩৬ কোটি ৪৩ লাখ এবং প্রকল্প সাহায্য ১ হাজার ৩২৮ কোটি ৬১ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।’

অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হল, ৮১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘পানি ব্যবস্থাপনা উন্নয়ন (ওয়ামিপ)’ প্রকল্পের সংশোধনী অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রকল্পটি ব্যয় কমানো হয়েছে। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড অধীনে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মেয়াদ ধরা হয়েছে ডিসেম্বর ২০১৫ হতে ডিসেম্বর ২০১৬ সালের মধ্যে।

‘গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় পাঁচপীর বাজার-চিলমারী-উপজেলা সদর দপ্তরের সাথে সংযোগকারী সড়কে তিস্তা নদীর উপর ১৪৯০ মিটার দীর্ঘ গার্ডার সেতু নির্মাণ’ প্রকল্পে প্রথম সংশোধনী অনুমোদন দেয়া হয়ে। প্রকল্পটির ব্যয় ৬৩০কোটি থেকে ৭৩০ কোটি ৮৫ লাখ টাকা ধরা হয়েছে।

‘জাতীয় প্রাণিসম্পদ পোল্ট্রি ব্যবস্থাপনা ইনস্টিটিউট এবং রোগ অনুসন্ধান গবেষণাগার স্থাপন’ প্রকল্প। ব্যয় বৃদ্ধি করে প্রকল্পটির ২য় সংশোধনী অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে ব্যয় দাঁড়িয়েছে ২৭ কোটি ৮৫ লাখ টাকা থেকে ৪২ কোটি
৮০ লাখ টাকা।

৪৫৭ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে আন্তঃজেলা সীমান্ত সড়ক নির্মাণ : ময়মনসিংহ ও নেত্রকোনা জেলার অংশ’ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

‘ঢাকার বেইলী রোডে পার্বত্য চট্টগ্রাম কমপ্লেক্স নির্মাণ’ প্রকল্প। এতে ব্যয় হবে ১০২ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। ‘মোবারক পুর তেল-গ্যাস অনুসন্ধানকূপ খনন’ প্রকল্পের ব্যয় হবে ৮৭ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। এছাড়া নংরসিংদী বিসিক শিল্প নগরী সম্প্রসারণ ব্যয় হবে ৭৬ কোটি ৮৫ লাখ টাকা এবং ‘ভোলা জেলার দৌলত খান ও বোরহানদ্দীন উপজেলায় মেঘনা নদী ভাঙ্গন হতে পোল্ডার ৫৬-৫৭ রক্ষা’ প্রকল্প। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ব্যয় করা হবে ৫৫১ কোটি ৫০ লাখ টাকা।






মন্তব্য চালু নেই