মেইন ম্যেনু

২ পুলিশ কর্মকর্তার নামে আদালতে মামলা

চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর আমলি আদালতে ঝিনাইদহের মহেশপুর থানার দুই পুলিশ কর্মকর্তার নামে চাঁদা দাবি ও হত্যাচেষ্টাসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে।

বৃহস্পতিবার জীবননগর উপজেলার হাসাদহের পাংকি মিয়ার স্ত্রী বেদেনা খাতুন বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। এতে মহেশপুর থানার এসআই হাফিজ ও এসআই শাহিন আলমকে আসামি করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও জীবননগর আমলি আদালতের অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত বিচারক ড. এবিএম মাহমুদুল হক মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্ত করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল হালিমকে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন। বাদীর উপস্থিতিতে আইনজীবী অ্যাডভোকেট এসএম সাইদুজ্জামান গণি টোটন আদালতে মামলাটি দাখিল করেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা গেছে, গত ৪ জানুয়ারি বেলা তিনটার দিকে মামলার বাদীর ছেলে মোশারফ হোসেন বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। ইতোপূর্বে উক্ত আসামিরা স্থানীয় ইনফরমারের প্ররোচণায় একলাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। বাদী ও তার ছেলে পুলিশকে জানায়, তারা কৃষক। তারা ফেনসিডিলের ব্যবসা করেন না।

বাদীর অভিযোগ ওই দুই পুলিশ কর্মকর্তা ডিবির পরিচয় দিয়ে মোশারফের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে একলাখ টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে অপারগতা জানালে তাকে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে মোটরসাইকেলে করে নিয়ে যায়। এরপর হাতকড়া ও পায়ে ডাণ্ডাবেড়ি পরিয়ে বেতের লাঠি দিয়ে নির্যাতন করে। নির্যাতনের পর মহেশপুর থানা কম্পাউন্ডে ফেলে রাখে। খবর পেয়ে বাদী ও সাক্ষীরা মুমূর্ষু অবস্থায় মোশারফকে উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।






মন্তব্য চালু নেই