মেইন ম্যেনু

৩য় শ্রেণির ছাত্রের চিঠির উত্তরে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী!

প্রতিদিনই স্কুল যেতে দেরি হচ্ছে, আর তাই রাগ করে একেবারে দেশের প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি। এমনই কাজ করল ৮ বছরের এক ছাত্র। আর এই চিঠিতে খোদ প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে জবাবও এল।

অনেকদিন হলো ফ্লাইওভারে কাজ চলছে, রোজই দেরি হয়ে যাচ্ছে স্কুলে যেতে। যশনাথপুরে একটি ফ্লাইওভারে কাজ চলছে বহুদিন ধরে। যারা জেরে প্রতিনিয়ত ট্রাফিক জ্যামের সম্মুখীন হতে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। এই ফ্লাইওভারের জন্য অভিনভ-র ৩কিমি দূরে অবস্থিত স্কুলে যেতে সময় লাগছে ৪৫মিনিট।

এই অবস্থার পরিত্রাণ পেতে ‘অভিনব’ নামে আট বছর বয়সী এক স্কুলছাত্র লিখলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বরাবর ই-মেইলে চিঠি। আর এই চিঠির সাড়াও দিলেন প্রধানমন্ত্রী। স্থানীয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশও দিলেন প্রধানমন্ত্রী।ভারতের উত্তর ব্যাঙ্গালুরোতে এমনই এক ঘটনার কথা জানিয়েছে ভারতের ইংরেজি দৈনিক টাইম নিউজ অব ইন্ডিয়ার নিবন্ধে।

অভিনব ইশান্তপুর ন্যাশনাল পাবলিক স্কুলে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে। সে তার পরিবারের সাথে বিদ্যারনপুরার দৌদ্ধাবোমাসান্দ্রা এলাকায় থাকে। অভিনবের বাসা থেকে স্কুলে যেতে পাড় হতে হয় আউটার রিং রোডের গোরাগুনতিপাইলা জংশনের রেল ক্রসিংটি। আর এই রেল ক্রসিংয়ে উপরই নির্মাণাধীন ফ্লাইওভারটি।অভিনব তার চিঠিতে উল্লেখ করে, নির্মাণাধীন ফ্লাইওভারের কারণে শুধু স্বাস্থ্য নয়, তার পড়াশুনারও মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে।

তবে সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে, এই রাস্তা দিয়ে হাজারো মানুষের যাতায়াত। কেউই এই ব্যাপারে যথাযথ কতৃপক্ষের কাছে কেউ লিখিত অভিযোগ করে নাই। কিন্তু আট বছরের একটি শিশু তা করে দেখালেন।






মন্তব্য চালু নেই