মেইন ম্যেনু

৩০ বছর পর লামা মাতামুহুরী ডিগ্রী কলেজ জাতীয়করণ : আনন্দ র‌্যালীতে মানুষের ঢল

মোহাম্মদ শামছুদ্দোহা, জেলা প্রতিনিধি, বান্দরবান : বান্দরবান লামায় দীর্ঘ ৩০ বছর প্রতীক্ষার পর লামা মাতামুহুরী ডিগ্রী কলেজ জাতীয়করণ হওয়ায় লামা উপজেলায় খুশীতে আনন্দের বন্যা বইছে। সারাদেশে ১৯৯টি কলেজ জাতীয়করণের তালিকায় লামা মাতামুহুরী ডিগ্রী কলেজসহ বান্দরবান জেলার ৩টি কলেজ অন্তর্ভূক্ত রয়েছে। এই উপলক্ষ্যে লামা সরকারী মাতামুহুরী ডিগ্রী কলেজ এর উদ্দ্যোগে ১৩ জুলাই বুধবার বেলা ১২টায় এক বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালীর আয়োজন করা হয়। র‌্যালীটি লামা সরকারী মাতামুহুরী ডিগ্রী কলেজ থেকে শুরু হয়ে লামা পৌর শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে টাউন হলে এসে শেষ হয় এবং এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আনন্দ র‌্যালীতে হাজার হাজার সাধারণ মানুষ, ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক, শিক্ষক, রাজনৈতিক ব্যাক্তিবর্গ, সাংবাদিক ও জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ স্বর্তস্ফুর্ত ভাবে উপস্থিত সমবেত হয়।

আনন্দ র‌্যালী শেষে লামা টাউন হলে আলোচনা সভায় লামা সরকারী মাতামুহুরী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম এর সভাপতিত্ব প্রধান অতিথি ছিলেন লামা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক সফল উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইসমাইল। লামার মানুষের বাধঁভাঙ্গা এই আনন্দ র‌্যালী ও আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, লামা পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম, বান্দরবান জেলা পরিষদ সদস্য মোস্তফা জামাল, ফাতেমা পারুল, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক বাথোয়াইচিং মার্মা, আলীকদম সদর ইউপি চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন, লামা ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা জাফর উল্লাহ, আওয়ামী নেতা মোঃ রফিক, তাজুল ইসলাম, সহ প্রমূখ।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে লামা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইসমাইল বলেন, মাতামুহুরী ডিগ্রী কলেজকে সরকারীকরণ করায় লামা ও আলীকদম বাসির দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় বান্দরবান জেলাও এগিয়ে যাচ্ছে। বান্দরবানের ৩টি বেসরকারী কলেজকে জাতীয়করণ করতে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ও ৫বারের নির্বাচিত এমপি বীর বাহাদুর উশৈসিং এর অনেক পরিশ্রম হয়েছে। লামার মানুষকে ভালবেসে বলে বীর বাহাদুর লামা মাতামুহুরী ডিগ্রী কলেজকে জাতীয় করণ করতে দিনে রাতে কায়িক পরিশ্রম করেছে। পার্বত্য লামার দরিদ্র ছেলে মেয়েদের উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে নতুন মাইলফলক রচনা করেছে আওয়ামীলীগ সরকার।

তিনি আরো বলেন, লামা উপজেলার সর্বোচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি সরকারী করায় লামার সর্বস্তরের মানুষ, অভিভাবক, ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা, শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। পাশাপাশি শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও পার্বত্য বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি’র প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানান। এ অবদানের কথা লামার মানুষ আজীবন স্মরণ করে যাবে। এ ছাড়া সকলে কলেজের প্রতিষ্ঠাতা দানবীরআলহাজ্ব মোঃ আলী মিয়া ও প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আশরাফুল ইসলাম সহ কলেজ প্রতিষ্ঠায় যাদের অবদান রয়েছে তাদের সকলকে শ্রদ্ধাস্বরে গভীরভাবে স্মরণ করেন।

উল্লেখ্য, ১৫ নভেম্বর ১৯৮৬ সালে লামা মাতামুহুরী কলেজটি স্থাপিত হয়। সরকার ১৯৯টি বেসরকারি কলেজকে জাতীয়করণ করার অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) রাতে তিনি দুটি তালিকায় এগুলোর অনুমোদন দেন। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পাওয়া একটি তালিকায় রয়েছে ১৫৪টি এবং আরেকটি তালিকায় রয়েছে ৪৫টি কলেজের নাম।






মন্তব্য চালু নেই