মেইন ম্যেনু

৩৩ বছর পর ব্রাজিলের জয়

পেলে-রোমারিও-রোনালদো-রোনালদিনহোরা যা পারেননি অলিম্পিকে তা করে দেখিয়েছেন নেইমার। এবার ইকুয়েডরের রাজধানী কিতোয় ৩৩ বছর জয়শূন্য থাকার হতাশাটাও কাটালেন ব্রাজিলের এই তারকা। নিজে গোল করে ও করিয়ে দলকে এনে দিলেন ৩-০ গোলের দুর্দান্ত এক জয়।

বৃহস্পতিবার রাতে প্রথমার্ধে কোন দলই নিশ্চিত কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। সময়ের অন্যতম সেরা তারকা নেইমারসহ ব্রাজিলের কেউই এই অর্ধে নিজেকে মেলে ধরতে পারেনি। ফলে গোল শূন্য অবস্থায় বিরতিতে যায় দুই দল।

বিরতি থেকে ফিরে গোলের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে ব্রাজিল। এরই ধারাবাহিকতায় ম্যাচের ৬৫ মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগ পায় ব্রাজিল; কিন্তু ১০ গজ দূরে ফাঁকায় বল পেয়েও ক্রসবারের উপর দিয়ে বল উড়িয়ে মারেন মিডফিল্ডার রেনাতো অগুস্তো। ম্যাচের ৭২ মিনিটে ক্ষিপ্র গতিতে বল পায়ে ডি বক্সে ঢুকে পড়া জেসুসকে গোলরক্ষক আলেক্সান্দার দোমিনিগেস ফাউল করায় পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্রাজিলকে এগিয়ে দেন নেইমার।

ম্যাচের ৮৭তম মিনিটে চমৎকার গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন জেসুস। মার্সেলোর বাড়ানো বলে অসাধারণ ব্যাক-হিলে লক্ষ্যভেদ করেন ১৯ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড। আর যোগ করা সময়ে বাঁ দিক থেকে নেইমারের বাড়ানো বল ধরে ডি-বক্সের ঠিক বাইরে থেকে জোরালো শটে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন জেসুস। বাকি সময় আর গোল না হলে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল। আর নতুন কোচ তিতের অধীনে ব্রাজিলের শুরুটাও হল দুর্দান্ত।






মন্তব্য চালু নেই