মেইন ম্যেনু

৩৪ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ প্লান্ট বিকল : ভোলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ

ভোলার গ্যাসভিত্তিক ৩৪ দশমিক পাঁচ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন রেন্টাল বিদ্যুৎ প্লান্ট বিকল হওয়ায় বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এর ফলে ভোলা সদর, বোরহানউদ্দিন, দৌলতখান, লালমোহন, তজুমদ্দিন ও চরফ্যাশন উপজেলার লাখো গ্রাহক ভোগান্তিতে পড়েছেন। বিকল হয়ে যাওয়া বিদ্যুৎ প্লান্ট বৃহস্পতিবার বিকেলে চালু হওয়ার কথা থাকলেও বিকেল পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হয়নি। এতে ক্রমেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেছেন বিদ্যুতের গ্রাহক।

এ ব্যাপারে ওয়েষ্টজোন পাওয়ার ডিষ্ট্রিভিউশন কম্পানী’ ভোলার নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী জানান, গত বুধবার রাতে ভোলার ৩৪ দশমিক পাঁচ মেগাওয়াট রেন্টাল বিদ্যুৎ প্লান্টের টারবাইনে সমস্যা দেখা দেওয়ায় বৃহস্পতিবার ভোর থেকেই বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে রেন্টাল বিদ্যুৎ প্লান্ট চালু হলে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা যাবে বলেও জানান তিনি। এদিকে বিকেল ৬টার দিকে ভোলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ কিছুটা স্বাভাবিক হলেও আবার ৬টা২০মিঃটে বিদ্যুৎ চলে যায়। বিদ্যুৎ চলে যাওয়া ও আসার মধ্যে বৃহস্পতিবার রাত কাটাতে হয় জেলার মানষকে।

এদিকে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ওজোপাডিকো ও বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান রেন্টাল বিদ্যুৎ প্লান্ট সূত্র থেকে জানা গেছে, ভোলার ৩৪ দশমিক পাঁচ মেগাওয়াট রেন্টাল বিদ্যুৎ প্লান্টে নিম্মমানের মেশিন স্থাপনের কারনে স্থাপনের শুরু থেকেই রেন্টাল বিদ্যুৎ প্লান্ট এ পর্যন্ত বহুবার বিকল হয়ে পড়ে।

অপরদিকে ওজোপাডিকোর ডিজেল চালিত বিদ্যুতের ছয় মেগাওয়াট বিদ্যুৎ প্লান্টটি বহু আগেই বিকল হয়ে গেছে। গ্যাসভিত্তিক ৩৪ দশমিক পাঁচ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন রেন্টাল বিদ্যুৎ প্লান্ট বিকল হয়ে গেলে আপদকালীন সময়ে ৩৩ কেভি জাতীয় গ্রীড সঞ্চালন লাইন থেকে শহরের কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হতো। কিন্তু জাতীয় গীড লাইনের সাবমেরিন ক্যাবলে ত্রুটি দেখা দেওয়ায় এখন জেলার ছয় উপজেলার ওজোপাডিকোর ৩০ হাজার ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৬০ হাজারসহ প্রায় এক লাখ গ্রাহকককে বিদ্যুৎ বিহীন বৃহস্পতিবার অন্ধকারে রাত কাটাতে হয়।






মন্তব্য চালু নেই