মেইন ম্যেনু

৩৬০০০ কোটি টাকার মালিক তরুণী হঠাৎ নিঃস্ব !

গত বছর তার প্রাক্কলিত সম্পদের পরিমাণ ছিল ৪৫০ কোটি ডলার। কিন্তু এবার হিসেব করে দেখা গেলো পুরোটাই ফানুস। তিনি এখন নিঃস্ব প্রায়! ফোর্বস সাময়িকী যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য প্রযুক্তি কোম্পানি থেরানসের প্রধান নির্বাহী এলিজাবেথ হোমসের সম্পদের হিসাব নতুন করে করার পর বুধবার এই তথ্য প্রকাশ করেছে।

এতে দেখা যায়, এক বছর আগে তার সম্পদের পরিমাণ ৪৫০ কোটি ডলার বা ৩৬,০০০ কোটি টাকা দেখানো হলেও এখন তিনি কার্যত নিঃস্ব।

হোমস রক্ত পরীক্ষার যে কোম্পানিটি তৈরি করেছিলেন তা নির্ভুল ফলাফল দিতে পারে না বলে বহু অভিযোগ আসার পর যুক্তরাষ্ট্রের বহু সংস্থা এর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে।

ফোর্বস বলছে, বেসরকারি বিনিয়োগকারীরা থেরানসের শেয়ার কিনতে ৯০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করলেও এখন দেখা যায় কোম্পানির দাম ৮০ কোটি ডলারের বেশি নয়।

ফোর্বস বলছে, এ অবস্থায় হোমসের শেয়ারের দাম আদতে শূন্য। তবে ফোর্বসের এ মূল্যায়ন নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তার মুখপাত্র। শুধু বলেছেন, এটি অনুমান এবং গণমাধ্যমের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে তৈরি।

২০১৫ সালে ফোর্বস সাময়িকী হোমসকে নিজের অর্জিত সম্পদের দিক থেকে আমেরিকারন সেরা ধনী নারীর খেতাব দিয়েছিল। ব্যবসা বিষয়ক সাময়িকীটি বলেছিল, থেরানসের ৫০ ভাগ শেয়ারের মালিক তিনি।

২০০৩ সালে থেরানস প্রতিষ্ঠাকালে হোমস ঘোষণা করেছিলেন তার প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে মাত্র এক ফোটা রক্তই বিস্ময়কর ফলাফল দেবে। কিন্তু পরে দেখা যায় ফলাফল ত্রুটিপূর্ণ এবং নির্ভুল নয়।

এরপর যুক্তরাষ্ট্রের সিকিউরিটিস অ্যান্ড এক্সচেঞ্জে কমিশন, স্বাস্থ্য দপ্তর, খাদ্য অধিদপ্তর, ফেডারেল প্রসিকিউটরসহ বহু সংস্থা থেরানসের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে।

এ ব্যাপারে কোনো মন্ত্য করতে রাজি হননি হোমস। -রয়টার্স






মন্তব্য চালু নেই