মেইন ম্যেনু

“৪০বছর ধরে লিখছি, বিনিময়ে বাংলার মানুষ নিষেধাজ্ঞা, ঘৃণা, কুৎসা ছাড়া আর কী দিল আমাকে”

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তিনি লিখছেন৷ মানবাধিকার, নারীর অধিকার, বাক স্বাধীনতা, সমতা সহ বিভিন্ন বিষয়ে চার দশক ধরে তিনি বাংলায় লিখছেন৷ অথচ, এ সবের বিনিময়ে শেষ পর্যন্ত বাংলার মানুষ কী ‘উপহার’ দিলেন তাঁকে!!

তিনি, লেখিকা তসলিমা নাসরিন৷ তিনি, কবি৷ তিনি শিল্পী৷ ‘লজ্জা’ তাঁর-ই সৃষ্টি৷ যে কারণেও না তিনি ‘লজ্জা-র শিল্পী’৷ সোমবার ফেসবুকে তসলিমা নাসরিন এমনই বলেছেন যে, ‘চার দশক লিখছি৷ বাংলায়৷ মানবাধিকার, নারীর অধিকার, বাক স্বাধীনতা, সমতা– ইত্যাদির জন্য৷ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে৷ বিনিময়ে বাংলার মানুষ কী দিল আমাকে? নিষেধাজ্ঞা, ঘৃণা, কুৎসা৷ তসলিমা লিখে গুগল করলে প্রথম পাতায় কী আসে দেখুন৷’

শুধুমাত্র তাই নয়৷ ফেসবুকে লেখিকা এ দিন এমনও বলেছেন, ‘উইকিপিডিয়াতে তো যার যা ইচ্ছে লিখে দিয়ে যায়৷’ স্বাভাবিক ভাবেই লেখিকার বহু অনুরাগী তাঁদের মতামত ব্যক্ত করেছেন ফেসবুকে৷ ওই সব অনুরাগীর মধ্যে কেউ যেমন এই বিষয়টিকে পাত্তা না দেওয়ার জন্য বলেছেন৷ কেউ যেমন এমন না ভাবার কথা বলেছেন৷ তেমনই, কেউ আবার লেখিকার সঙ্গে সহমত পোষণ না করে, তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন৷ তবে, ওয়াকিবহাল মহলের কোনও কোনও অংশ এমনও মনে করছে, লোভী দুনিয়ায় একজন পরিত্যক্ত, অপদার্থ মহিলা-র কথা বলে তিনি যে টুইট করেছিলেন, ফেসবুকে লেখিকার এ দিনের মন্তব্য তারই ব্যাখ্যা হতে পারে৷






মন্তব্য চালু নেই