মেইন ম্যেনু

৪০০ বছর পর মন্দিরে প্রবেশে অনুমতি

প্রায় চারশ বছরের পুরনো প্রথা ভেঙ্গে ভারতের মহারাষ্ট্রের শনি শিংনাপুর মন্দিরে প্রবেশ করেছে নারীরা। আদালতের নির্দেশনার পর শুক্রবার কর্তৃপক্ষ নারীদের মন্দিরে প্রবেশের অনুমতি দেয়।

কয়েক শতাব্দীর পুরনো শনি শিংনাপুর মন্দিরে কেবল পুরুষদেরই প্রবেশাধিকার ছিল। নারীরা মন্দিরটিতে প্রবেশ করতে পারতো না। কয়েক শতাব্দীর এই প্রথা ভাঙতে গত বছর এক নারী মন্দিরে প্রবেশে চেষ্টা চালায়। তবে মন্দির কর্তৃপক্ষ তাকে ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়নি। এর পরিপ্রেক্ষিতে ভূমাতা ব্রিগেড নামে নারীদের একটি সংগঠন মন্দিরে নারীদের প্রবেশাধিকার চেয়ে আন্দোলন শুরু করে। এমনকি নারীরা জোর করে মন্দিরে প্রবেশের চেষ্টা চালালে তাদের কঠোরভাবে বাঁধা দেওয়া হয়। এ ঘটনার পর ভূমাতা ব্রিগেডের পক্ষে মুম্বাই হাইকোর্টে মামলা দায়ের করা হয়। আদালত গত ১ এপ্রিল নারীদের মন্দিরে প্রবেশে ও প্রার্থণা করার অনুমতি আছে বলে রায় দেয়। একই সঙ্গে তাদের মন্দিরে ঢুকতে বাধা দিলে ছয় মাস পর্যন্ত কারাদণ্ডের বিধানও ঘোষণা করা হয়।সরকারের পক্ষ থেকেও আদালতে জানানো হয়েছে, মন্দিরে প্রবেশ ও প্রার্থণার ক্ষেত্রে নারী-পুরুষ বিভাজন নীতি বরদাশত করা হবে না।

শুক্রবার মন্দিরের ট্রাস্টি বোর্ড নারীদের জন্য মন্দিরের দুয়ার খুলে দেয়।

মন্দিরের ট্রাস্টি সায়ারাম বাঙ্কার জানান, শুক্রবার ট্রাস্টি বোর্ডের বৈঠক হয়েছে এবং বোর্ড আদালতের নির্দেশ পালনার্থে নারীদের মন্দিরে প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই