মেইন ম্যেনু

৫ম শ্রেনীর ছাত্রী সাত মাসের অন্তঃসত্বা : ধর্ষক গ্রেফতার

পিরোজপুর: উপজেলার পাঁচশতকুড়া টিকিকাটা গ্রামের দারিদ্র হোটেল শ্রমিকের মেয়ে ৫ম শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করেছে একই এলাকার শাহিন নামের লম্পট। ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী অন্তঃসত্বা হলেও লজ্জায় সে কারো কাছে বলেনি। ৭ মাসের মাথায় তার শারীরিক পরিবর্তণ হলে ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হয়।

এঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে পুলিশ ধর্ষক শাহিন(১৮)কে রোববার রাতে গ্রেফতার করেছে। লম্পট শাহিন উপজেলার পাঁচশতকুড়া টিকিকাটা গ্রামের হারুন হাওলাদারের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার পাঁচশতকুড়া টিকিকাটা গ্রামের হারুন হাওলাদারের বখাটে ছেলে শাহিন বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একই এলাকার হোটেল শ্রমিক ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী অন্তঃসত্বা হয়ে পড়লে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়। এঘটনায় ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ ধর্ষক শাহিনকে রোববার রাতে গ্রেফতার করে সোমবার আদালতে সোপর্দ করে।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, পিরোজপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ওই স্কুল ছাত্রীর ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই