মেইন ম্যেনু

৫০০ পর্নোসাইট বন্ধ করলো সরকার

বন্ধ করা হলো পাঁচ শতাধিক পর্নোসাইট। সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি ৫ শতাধিক পর্নোসাইটের একটি তালিকা ইন্টারনেট গেটওয়ে ও ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে পাঠায়। এরইমধ্যে পর্নোসাইট বন্ধের কার্যক্রমও শেষও হয়েছে। তবে সব সাইট এখনও বন্ধ করা সম্ভব হয়নি বলে জানা গেছে।

এর আগে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি ৫১০টি পর্নোসাইটের একটি তালিকা দেশের মোবাইলফোন অপারেটর, ইন্টারনেট গেটওয়ে, আইসিএক্স অপারেটর, আইএসপিগুলোর কাছে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবির সভাপতি এম এ হাকিম বলেন, আমরা বিটিআরসি থেকে পাঠানো এরকম একটি তালিকা পেয়েছি। এরই মধ্যে পর্নোসাইট ব্লক (দেশ থেকে দেখা যাবে না।) করার কাজ শুরু করেছি। কিছু সাইট ব্লক করা সম্ভব হয়েছে। কারিগরি কারণে অনেক সাইট ব্লক করা সম্ভব হয়নি। পর্যায়ক্রমে সেগুলোও বন্ধ করা হবে বলে তিনি জানান।

আরও জানা গেছে, যেসব সাইটে পর্নোগ্রাফি, অশ্লীল ছবি এবং ভিডিও রয়েছে এমন ৫১০টি সাইট বন্ধ হচ্ছে। আরও জানা গেছে, এই সাইটগুলো বাংলাদেশ থেকে হোস্ট করা। এছাড়াও আরও প্রায় ৭০-৮০ শতাংশ পর্নোসাইট রয়েছে যা দেশের বাইরে থেকে হোস্ট করা। পর্যায়ক্রমে সেসব সাইটও বন্ধের উদ্যোগ নেবে বিটিআরসি।

আইএসপিএবির সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক বলেন, এরইমধ্যে তালিকার ৯০ শতাংশ পর্নোসাইট বন্ধ করা সম্ভব হয়েছে। অবশিষ্ট ১০ শতাংশ সাইটও শিগগিরই বন্ধ করা সম্ভব হবে। তিনি জানান, অনেক পর্নোসাইট ক্লাউডে হোস্ট করা। এগুলো চাইলেও দ্রুত বন্ধ করা কঠিন। আইপি নম্বর ধরে ধরে বন্ধ করতে হয়।

ইমদাদুল হক আরও জানান, বিটিআরসি ও স্টেকহোল্ডারগুলোকে নিয়ে একটি মনিটরিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটি এরই মধ্যে মনিটরিংয়ের কাজও শুরু করেছে। দুই-এক দিনের মধ্যে জানা যাবে পর্নোসাইট সঠিকভাবে ব্লক করা হয়েছে কিনা, হলে কিভাবে, কোনগুলো চালু আছে, বিদেশে হোস্ট করা কতগুলো সাইট দেখা যাচ্ছে সেসব রিপোর্ট পাওয়া যাবে কমিটির কাছ থেকে।






মন্তব্য চালু নেই